kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

রায়গঞ্জে স্কুল মাঠে ইটের ব্যবসা, পড়ালেখা বিঘ্নিত

তাড়াশ-রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২৬ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রায়গঞ্জে স্কুল মাঠে ইটের ব্যবসা, পড়ালেখা বিঘ্নিত

সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার চান্দাইকোনা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে ইট ও খোয়ার ব্যবসা। ছবি : কালের কণ্ঠ

সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার চান্দাইকোনা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ দখল করে স্থানীয় এক প্রভাবশালী ব্যক্তি ইট ও খোয়ার ব্যবসা করছে। এই উচ্চ বিদ্যালয়ের পশ্চিম পাশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দক্ষিণ পাশে রয়েছে চান্দাইকোনা দাখিল মাদরাসা। প্রতিদিন ক্লাস চলাকালীন সময়ে ট্রাকে ইট ওঠানো-নামানো ও বেচাকেনার হাঁকডাকে শিক্ষার স্বাভাবিক পরিবেশ মারাত্মকভাবে বিঘ্নিত হচ্ছে। অন্যদিকে ইট ও চলাচলকারী ট্রাকের ধুলায় শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। স্কুল কর্তৃপক্ষ বারবার ইটের স্তূপ সরানোর তাগাদা দিলেও তাদের কথা কানে তোলেননি ব্যবসায়ী রবিন শেখ। এমনকি প্রশাসনের পক্ষ থেকে নির্দিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দিলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি।

সরেজমিনে স্কুল মাঠে গিয়ে দেখা যায়, হাই স্কুল মাঠের পশ্চিম পাশে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গেট, দক্ষিণ পাশে দাখিল মাদরাসার একাডেমিক ভবনের জানালা বরাবরও ইট ও খোয়া স্তূপ করে রাখা হয়েছে। এ ইট ও খোয়া সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত আনা-নেওয়া চলে।

শিক্ষার্থী রুবেল, আনোয়ার হোসেন ও সোহেল রানা জানায়, ইট বহনকারী ট্রাকের শব্দে ও লোকজনের হৈচৈ তারা ঠিকমতো শিক্ষকদের পড়া শুনতে পায় না। ধুলাবালিতে তাদের শ্বাস নিতে কষ্ট হয়। এ বিষয়ে তারা বারবার স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানালেও কোনো কাজ হয়নি।

চান্দাইকোনা বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মুকিত বলেন, ‘আমাদের কাউকে না জানিয়ে জোর করে মাঠের জায়গা দখলে নিয়ে ইটের ব্যবসা করছে তারা। মৌখিকভাবে তাদের নিষেধ করেছি। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকেও লিখিতভাবে বিষয়টি জানিয়েছি। কিন্তু তারা শুনছে না।’ একই কথা বলেন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ওসমান গণী ও দাখিল মাদরাসার সুপার মো. শাহনূর।

এ প্রসঙ্গে কথা হয় চান্দাইকোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি আমিনুল ইসলাম শিহাবের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা এক কথায় অবরুদ্ধ। যেখানে খোলা মাঠ ছিল, সেখানে এখন ইটের কারণে সাধারণভাবে চলাচল করাই দায় হয়ে পড়েছে।’

এ ব্যাপারে মুঠেফোনে ইট ব্যবসায়ী রবিন শেখের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ‘সাময়িকভাবে স্কুল মাঠ ব্যবহার করছি। আমাকে ইউএনও সাহেব সময় দিয়েছেন। তবে আমরা দ্রুত ইট সরিয়ে নেব।’

রায়গঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামীমুর রহমান বলেন, ‘অভিযোগ পেয়ে তাত্ক্ষণিকভাবে ইট সরিয়ে নিতে বলেছি। তারা কয়েক দিন সময় চেয়েছে। কথা না শুনলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা