kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

শত বাধা পেরিয়ে

অন্যের বাড়িতে কাজ করেছে তমা

নজরুল ইসলাম, ক্ষেতলাল (জয়পুরহাট)   

২৫ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



অন্যের বাড়িতে কাজ করেছে তমা

১০ বছর আগে বাবা আনিছুর রহমান মারা যান। তিনি ক্যান্সারের রোগী ছিলেন। এর পর থেকে ঝিয়ের কাজ করে সংসার চালাচ্ছেন মা। টানাটানির সংসার; তাই পড়ার খরচ জোগাতে অন্যের বাড়িতে কাজ করেছে আফরিন তমাও। তার কষ্ট-পরিশ্রম বৃথা যায়নি। এ বছর জয়পুরহাটের ক্ষেতলালের বিনাই জসিমউদ্দিন মেমোরিয়াল বিদ্যানিকেতনের মানবিক বিভাগ থেকে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ পেয়েছে সে। বিনাই গ্রামের তমা ভবিষ্যতে প্রশাসনিক কর্মকর্তা হতে চায়। কিন্তু টাকার অভাবে তার কলেজে ভর্তি হওয়াই অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

তমার মা আকতার বানু বলেন, ‘আমি অন্যের বাড়িতে কাজ করে দুই মেয়ের লেখাপড়ার খরচ জোগাড় করতে হিমশিম খাচ্ছি। ছোট মেয়ে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ে। বড় মেয়েকে কলেজে ভর্তি করানো নিয়ে চিন্তায় আছি।’ তমা বলে, ‘অভাবের সংসারে অনেক দুঃখ-কষ্টে লেখাপড়া করেছি। আমার মাও অনেক কষ্ট করেছে। বাবা বেঁচে থাকলে অনেক খুশি হতেন। কলেজে ভর্তি হতে পারব কি না জানি না, তবে সবার কাছে দোয়া চাই।’ 

 

মন্তব্য