kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২০ জুন ২০১৯। ৬ আষাঢ় ১৪২৬। ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

স্বেচ্ছাসেবক ও আওয়ামী লীগ নেতাকে জখম

লক্ষ্মীপুর ও কাঁঠালিয়া (ঝালকাঠি) প্রতিনিধি   

২৩ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জে কাজী মামুন (২২) নামের স্বেচ্ছাসেবক লীগের এক নেতাকে কুপিয়ে জখম করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে কফিল উদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে। ওই কলেজ ছাত্রলীগের সহসভাপতি রাজিবুল ইসলাম নিশান ও তার অনুসারীরা পরিকল্পিতভাবে এ হামলা করে বলে মামুনের অভিযোগ। মামুন সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নের শেখপুর গ্রামের শামছুল আলমের ছেলে।

স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মামুন বলেন, ‘ছাত্রলীগ নেতা নিশান লোকজন নিয়ে এসে আমার ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়েছে। অনেক দিন ধরেই সে আমাকে মারার পাঁয়তারা করছিল।’ তবে অভিযোগ অস্বীকার করে ছাত্রলীগ নেতা নিশান বলেন, ‘মামুনকে মারধরের ঘটনাটি শুনেছি। তবে কে বা কারা তার ওপর হামলা করেছে তা আমি জানি না। এর সঙ্গে আমি বা আমার কোনো নেতাকর্মী জড়িত নয়।’

এদিকে ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলার পাটিখালঘাটা ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম মৃধাকে (৪৫) রড ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার নেয়ামতপুরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত নজরুলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আহত নজরুলের স্ত্রী শিরিন আক্তার বাদী হয়ে দুজনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতপরিচয় আরো তিন-চারজনকে আসামি করে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

স্থানীয় বাচ্চু মুন্সির বাড়ির সামনে একই এলাকার মৃত আ. মজিদের ছেলে ছিদ্দিক মোল্লা ও আ. কুদ্দুস মোল্লাসহ কয়েকজন তাঁকে পথরোধ করে রড ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে।

 

মন্তব্য