kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

শত বাধা পেরিয়ে

কৃষিকাজের ফাঁকে পড়েছে মনিরুল

সনাতন দাশ, তাড়াশ-রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ)   

২২ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



কৃষিকাজের ফাঁকে পড়েছে মনিরুল

অভাব-অনটন, সত্মায়ের নির্যাতন—কোনো কিছুুই দমাতে পারেনি মনিরুল ইসলামকে। কৃষিকাজের ফাঁকে পড়াশোনা চালিয়ে গেছে সে। পেয়েছে কষ্টের মিষ্টি ফল। এ বছর সিরাজগঞ্জের তাড়াশের গুল্টা দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এসএসসি পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ ৫ পেয়েছে মনিরুল। কিন্তু উচ্চশিক্ষা গ্রহণের মতো সামর্থ্য নেই তার। কিভাবে কলেজে ভর্তি হবে, বই-খাতা কিনবে—এসব চিন্তায় নির্ঘুম রাত কাটছে তার।

মনিরুলের মা মুর্শিদা খাতুন বেঁচে নেই। উপসিলট গ্রামে বাবা মো. লুত্ফর রহমান আর সত্মায়ের সঙ্গে থাকে সে। ছোট থেকেই লেখাপড়ায় ভালো মনিরুল। বিভিন্ন সমস্যার মধ্যেও পড়াশোনা চালিয়ে গেছে সে। নিজের পড়ার খরচ জোগাতে কৃষিকাজ করেছে। এসএসসির আগে পিইসি ও জেএসসিতেও গোল্ডেন জিপিএ ৫ পেয়েছে সে।

‘প্রয়োজনমতো ছেলেকে লেখাপড়ার খরচ দিতে পারিনি। স্কুলের শিক্ষকরা বই-খাতা কিনে দিয়েছেন। অর্থের অভাবে কোনো বিষয়ে প্রাইভেট পড়াতে পারিনি। ভালো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পড়ানোর মতো আর্থিক অবস্থা আমাদের নেই’—বলেই কেঁদে ফেলেন মনিরুলের বাবা লুত্ফর। চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন মনিরুলের। কিন্তু টাকার অভাবে তার উচ্চশিক্ষা অর্জন অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে। তাই স্বপ্নপূরণে বিত্তবানদের সহযোগিতা চেয়েছে সে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা