kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২০ জুন ২০১৯। ৬ আষাঢ় ১৪২৬। ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

শত বাধা পেরিয়ে

দোকানে কাজ করে পড়ার খরচ জুগিয়েছে বুলবুল

আহছান উল্লাহ, গৌরনদী (বরিশাল)   

১৯ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দোকানে কাজ করে পড়ার খরচ জুগিয়েছে বুলবুল

বাবা কোনো খোঁজখবর নেন না। মা দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ। সংসার চালাতে তাই অন্যের দোকানে কাজ নেয় মো. বুলবুল হোসেন। পাশাপাশি পড়াশোনাও চালিয়ে যায়। বুলবুলের পরিশ্রম বৃথা যায়নি। এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় সরকারি গৌরনদী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিজ্ঞান বিভাগ থেকে জিপিএ ৫ পেয়েছে সে। বুলবুলের সাফল্যে তার শিক্ষক, সহপাঠীসহ পাড়া-প্রতিবেশীরাও উচ্ছ্বসিত। কিন্তু কলেজে ভর্তি হওয়ার মতো টাকা নেই তার কাছে।

বুলবুলের বাড়ি বরিশালের গৌরনদীর বড় দুলালী গ্রামে। কিন্তু মা আলেয়া বেগমকে নিয়ে উপজেলা সদরে ভাড়ায় ঝুপড়ি ঘরে থাকে সে। দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিস, ব্লাড প্রেসারসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছেন আলেয়া। ফলে কোনো কাজ করতে পারেন না তিনি। সংসার আর পড়াশোনার খরচ জোগাতে নবম শ্রেণিতে ওঠার পর গৌরনদী বাসস্ট্যান্ডে মোবাইল ফোনের দোকানে কাজ নেয় বুলবুল। এর আগ পর্যন্ত সে ও তার মা অন্যদের সাহায্য-সহযোগিতায় চলেছেন।

একপর্যায়ে বুলবুলের মেধার কথা জানতে পারেন সরকারি গৌরনদী কলেজের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক মো. ইউনুস আলী। পরে তিনি বিনা পয়সায় বুলবুলকে পড়ানো শুরু করেন। প্রতিদিন এক থেকে দুই ঘণ্টা করে পড়াতেন।

এ ছাড়া সকালে ঘুম থেকে উঠে এক থেকে দুই ঘণ্টা আর রাতে বাসায় ফিরে তিন থেকে চার ঘণ্টা করে একাই পড়ত বুলবুল।

মন্তব্য