kalerkantho

বুধবার। ১৯ জুন ২০১৯। ৫ আষাঢ় ১৪২৬। ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

দুই জেলায় পুড়ল ১১ দোকান

নাটোর, উলিপুর (কুড়িগ্রাম) ও শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি   

১৮ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নাটোর শহরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে চারটি গুদামঘর, চারটি দোকান ও দুটি বসতবাড়ি পুড়ে গেছে। শুক্রবার রাত আড়াইটার দিকে শহরের চকবৈদ্যনাথে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নাটোর ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক আসাদুজ্জামান জানান, চকবৈদ্যনাথ এলাকার জুয়েলের কাগজের কার্টন ও প্লাস্টিক ক্যারেটের গুদামঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। মুহূর্তে আগুন পাশের আরো তিনটি গুদাম, দোকান ও বসতবাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে।

খবর পেয়ে নাটোর ও বনপাড়া ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট এলাকাবাসীর সহায়তায় প্রায় আড়াই ঘণ্টা চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিকে কুড়িগ্রামের উলিপুরে সাতটি দোকান পুড়ে গেছে। উপজেলার দুর্গাপুর বাজারে গত বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

উলিপুর ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স সূত্রে জানা গেছে, রফিকুল ইসলাম নামের এক টিভি মিস্ত্রির দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত্র ঘটে। মুহূর্তে আগুন আশপাশের দোকানে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে উলিপুর ও কুড়িগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের চারটি ইউনিট গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে বাজারের নাইমুলের রাইসমিল, সহিদুলের স্টেশনারি, মুকুলের ক্রোকারিজ, আমিনুল ইসলামের ওষুধের দোকানসহ সাতটি দোকানের প্রায় ১৫ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে যায় বলে ক্ষতিগ্রস্তরা দাবি করেন।

শরণখোলায় দুর্বৃত্তের আগুনে ছাই হলো ৬টি খড়ের গাদা

বাগেরহাটের শরণখোলার পশ্চিম খাদা গ্রামে গত দুই দিনে চারটি বাড়িতে দুর্বৃত্তদের দেওয়া আগুনে একটি গোয়ালঘর, একটি জ্বালানি কাঠ সংরক্ষণের ঘর ও ছয়টি খড়ের গাদা পুড়ে ছাই হয়েছে। আগুনে বিভিন্ন গাছও পুড়ে গেছে। একের পর এক এমন ঘটনায় ওই গ্রামের মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা