kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

সাতক্ষীরায় ৩ গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা

সাতক্ষীরা ও তালা প্রতিনিধি   

১৮ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাতক্ষীরায় ৩ গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা

প্রতীকী ছবি

সাতক্ষীরার আলাদা স্থানে গতকাল ও গত বৃহস্পতিবার  তিন গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে।

নিহত গৃহবধূরা হলেন জেলা শহরের কামালনগরের সাকিব হোসেনের স্ত্রী সুমাইয়া খাতুন এবং তালা উপজেলার মুড়াগাছা গ্রামের আসমাতুল্লা শেখের স্ত্রী রেহেনা বেগম ও চাঁদপুর গ্রামের কবির শেখের স্ত্রী বিলকিস খাতুন।

তাঁদের মধ্যে সুমাইয়া আশাশুনি উপজেলার কাদাকাটি গ্রামের মঞ্জুরুল সরদারের মেয়ে এবং রেহেনা তালার মোকলেন্দুকাটি গ্রামের শেখ আশরাফ হোসেনের মেয়ে ও বিলকিস ফুলবাড়িয়া গ্রামের মতলেব সরদারের মেয়ে।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, মাত্র দেড় বছর আগে সুমাইয়ার সঙ্গে সাকিবের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই টাকার দাবিতে স্ত্রীকে নির্যাতন করছিলেন সাকিব। এ নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। গতকাল ভোরে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার পর ঝুলিয়ে রেখে পালিয়ে যান সাকিব।

অন্যদিকে টাকার দাবিতে প্রায়ই রেহেনাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করত তাঁর স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার রাতে তারা রেহেনাকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। পরে তাঁর মুখে কীটনাশক ঢেলে দেয়। ঘটনাটি ভিন্ন খাতে নিতে তারা রেহেনাকে নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, হাসপাতালে আনার পৌনে এক ঘণ্টা আগেই রেহেনার মৃত্যু হয়েছে। এ অবস্থায় লাশসহ রেহেনার শ্বশুরকে হাসপাতালে রেখেই অন্যরা পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ গতকাল ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে। লাশের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন আছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেলে ৭০ হাজার টাকার দাবিতে আরেক গৃহবধূ বিলকিসকে পেটানোর পর তাঁর মুখে বিষ ঢেলে দেয় স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন। পরে রাতে তাঁর মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা