kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ মে ২০১৯। ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৮ রমজান ১৪৪০

নওগাঁয় যুবককে পিটিয়ে হত্যা

রাজশাহীতে আহত ৯

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নওগাঁর মহাদেবপুরে চোখে মুখে টর্চ লাইটের আলো ধরার প্রতিবাদ করায় জহুরুল ইসলাম নামের এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ছাড়া রাজশাহীর দুর্গাপুর ও বাঘায় প্রতিপক্ষের হামলায় নারীসহ অন্তত ৯ জন আহত হয়েছে। বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

নওগাঁর মহাদেবপুরে চোখে মুখে টর্চ লাইটের আলো ধরার প্রতিবাদ করায় জহুরুল ইসলাম (৩৫) নামের এক ব্যক্তিকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার শিবরামপুর মধ্যপাড়া গ্রামে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গ্রামের শামসুল হকের ছেলে জহুরুল ইসলাম বুধবার রাত ৯টার দিকে নিজ বাড়ির উঠানে বসা ছিলেন। এ সময় প্রতিবেশী আশরাফুল ইসলাম বাচ্চু তার হাতে থাকা টর্চ লাইটের আলো জহুরুলের চোখে মুখে ধরলে প্রতিবাদ করেন জহুরুল। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে বাগিবতণ্ডার একপর্যায়ে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় জহুরুলকে মাথায় আঘাত করা হয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় জহুরুলের বাবা বাদী হয়ে ৯ জনকে আসামি করে মহাদেবপুর থানায় হত্যা মামলা করেছেন। পরে পুলিশ ওই রাতেই সাতজনকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠান।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এরশাদ আলী জানান, সংঘর্ষের ঘটনায় সাতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং দুজন পলাতক রয়েছে।

এদিকে রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার চৌপুকুরিয়া গ্রামে ঘরের জানালা দিয়ে উঁকি দেওয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে নারীসহ উভয় পক্ষের ছয়জন আহত হয়েছে। আহতরা হলো আবদুস ছালাম, জানে আলম, রনি, হাবিবুর রহমান, রাকিবুল ইসলাম ও মেরিনা বেগম। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

অন্যদিকে পূর্বশত্রুতার জেরে বাঘা উপজেলার মহদীপুর গ্রামে এক নারীসহ তিনজনের নাক ফাটিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকেরা। বৃহস্পতিবার সকাল ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, গ্রামের ফরমান হোসেন ও ফরিদ আহম্মেদের মধ্যে জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছিল। এরই জেরে বৃহস্পতিবার সকালে ফরমান ও তার লোকজন ফরিদের ওপর হামলা চালায়। এ সময় তার ছেলে ও ছেলের বউ এগিয়ে গেলে ইট দিয়ে তাদের নাক ফাটিয়ে দেওয়া হয়। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ফরিদ আহম্মেদের আরেক ছেলে রুবেল বাদী হয়ে সাতজনকে অভিযুক্ত করে থানায় অভিযোগ করেছেন।

 

মন্তব্য