kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

গৌরনদীর গরঙ্গল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

মেঘ দেখলেই ছুটির ঘণ্টা

গৌরনদী (বরিশাল) প্রতিনিধি   

২১ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মেঘ দেখলেই ছুটির ঘণ্টা

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার গরঙ্গল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আকাশের নিচে পড়াশোনা করছে। ছবিটি গতকাল তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার নলচিড়া ইউনিয়নের ৫২ নম্বর গরঙ্গল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মেঘ দেখলেই ছুটির ঘণ্টা বাজানো হয়। বিদ্যালয় ভবনটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করায় প্রচণ্ড গরমের মধ্যে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পাঠদান করানো হয়। এতে শিক্ষার্থীদের পাঠদানে চরম বিঘ্ন ঘটছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, ৫২ নম্বর গরঙ্গল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত ২২৩ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। এর মধ্যে ১১৩ জন ছাত্র ও ১১০ জন ছাত্রী। বিদ্যালয়ের মূল ভবন পরিত্যক্ত হওয়ায় প্রচণ্ড তাপদাহের মধ্যে খোলা আকাশের নিচেই পাঠদান চলছে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাওলাদার খলিলুর রহমান বলেন, ‘চার বছর আগে বিদ্যালয়ের মূল ভবনের পাঁচটি কক্ষের তিনটি কক্ষ পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়। বাকি দুটি কক্ষের একটি শিক্ষক মিলনায়তন ও অন্য কক্ষটি ক্লাস হিসেবে ব্যবহার করা হয়। মাঝেমধ্যে এ কক্ষ দুটিরও পলেস্তরা খসে পড়ে। এ ছাড়া আরেকটি টিনের ঘর আছে সেখানেও ক্লাস নেওয়া হয়। তবে টিনের ঘরটিও ঝুঁকিপূর্ণ। অত্যধিক গরম বা মেঘ দেখলেই শিক্ষার্থীদের ছুটি দিয়ে দিতে হয়। উপজেলা সরকারি প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে বিদ্যালয়ের সমস্যাগুলো মৌখিকভাবে জানিয়েছি। উপজেলা প্রাথমিক সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা বজলুল করিম সরজমিনে এসে দেখেও গেছেন।’ বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি মো. শহিদুল খান বলেন, ‘বিদ্যালয়ের অবস্থা খুবই খারাপ। আমাদের ভয় হয় বড় কোনো দুর্ঘটনা ঘটে কি না। আমরা গত চার বছর ধরে কর্তৃপক্ষকে তাগিদ দিতেছি। তারা আশ্বাসও দিচ্ছে কিন্তু সমস্যার কোনো সমাধান হচ্ছে না।’

মন্তব্য