kalerkantho

সোমবার। ২৭ মে ২০১৯। ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২১ রমজান ১৪৪০

চরফ্যাশনের মেঘনা-তেঁতুলিয়া

দণ্ড এড়াতে শিশুদের দিয়ে মাছ শিকার

চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি   

১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দণ্ড এড়াতে শিশুদের দিয়ে মাছ শিকার

ভোলার চরফ্যাশনে কারাদণ্ড এড়াতে শিশুদের দিয়ে মাছ ধরাচ্ছে জেলেরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ভোলার চরফ্যাশনে মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীতে অবাধে জাটকাসহ বিভিন্ন ধরনের মাছ শিকার করা হচ্ছে। কারাদণ্ড এড়ানোর কৌশল হিসেবে কোনো কোনো জেলে শিশুদের দিয়ে মাছ ধরাচ্ছে।

গতকাল বুধবার সরেজমিন উপজেলার মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর কিছু স্থানে দেখা যায়, ভ্রাম্যমাণ আদালতের চোখ ফাঁকি দিয়ে অর্ধশতাধিক জেলে নৌকা নিয়ে মাছ ধরায় ব্যস্ত। তাদের মধ্যে শিশুরাও আছে। যাতে তারা ধরা পড়লে শুধু জরিমানা দিয়েই পার পেয়ে যায়।

অন্যদিকে কয়েকটি মাছঘাট ঘুরে দেখা গেছে, প্রকাশ্যে জাটকাসহ বিভিন্ন ধরনের মাছ কেনাবেচা চলছে। নিষেধাজ্ঞার সময় মাছ ধরার কারণ জানতে চাইলে কয়েকজন জেলে বলেন, ‘আমরা এত দীর্ঘ সময় বেকার থাকতে চাই না।’

আসলামপুর ইউনিয়নে (বেতুয়া ঘাট) মেঘনাপাড়ের জামাল বলেন, ‘‘প্রশাসন জেলেদের ‘পাহারা’ দিলেও তাদের চালাকির কাছে হেরে যাচ্ছে। শুধু ইলিশ কেন; নদীর পারে লাইন ধরে বাগদা ও গলদা চিংড়ির রেণু-পোনাও অবাধে ধরা হচ্ছে। অবরোধে (নিষেধাজ্ঞার সময়) মাছ ধরা—এটা জেলেদের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। তবে জেলেরা বাঁচতে কৌশলে শিশুদের নদীতে মাছ শিকারে পাঠায়। এতে ধরা খেলে শুধু জরিমানা করা হয়।’’

ইউএনও রুহুল আমীন বলেন, ‘নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত চালানো হচ্ছে। জেলেদের জেল-জরিমানা করা হচ্ছে। তারা যাতে মাছ ধরতে না পারে সেদিকে খেয়াল রাখার জন্য সবাইকে আরো কঠোরভাবে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

মন্তব্য