kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

‘পাকিস্তান’ অপসারণ

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি   

২ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘পাকিস্তান’ অপসারণ

পাবনার ভাঙ্গুড়ায় একটি ভবনে খচিত পাকিস্তানি পতাকা ও ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ লেখা প্রতিকৃতি অপসারণ করা হয়েছে। ছবি : কালের কণ্ঠ

স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর পাবনার ভাঙ্গুড়ায় একটি বৃহৎ বাণিজ্যিক ভবনের মূল স্তম্ভে খচিত পাকিস্তানের জাতীয় পতাকা ও ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ লেখা প্রতিকৃতি ভেঙে ফেলা হয়েছে।

উপজেলা সদরের প্রাণকেন্দ্র শরত্নগর বাজারে অবস্থিত একজন প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতার মালিকানাধীন ভবনে ওই প্রতিকৃতি এত দিন দৃশ্যমান ছিল। অবশেষে এলাকাবাসীর অসন্তোষের মুখে চলতি সপ্তাহে ভবনটির পতাকাখচিত স্তম্ভটি ভেঙে ফেলা হয়। এতে উপজেলার মুক্তিযোদ্ধারাসহ সব পর্যায়ের মানুষ স্বস্তি প্রকাশ করে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, ১৯৬৬ সালের দিকে ভাঙ্গুড়ার শরত্নগর বাজারে মালামাল সংরক্ষণের জন্য একটি বড় ভবন নির্মাণ করা হয়। তৎকালীন ভাঙ্গুড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাদশা ওই ভবনটি নির্মাণ করেন। সেই সময় ভবনের মূল স্তম্ভে পাকিস্তানের জাতীয় পতাকা ও বাংলায় লেখা ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ শব্দ দুটি খচিত করা হয়। ১৯৭১ সালে দেশ স্বাধীন হলেও বাদশা চেয়ারম্যানের জীবদ্দশায় ওই পতাকা ও লেখা অপসারণ করা হয়নি। পরে আশির দশকের শেষের দিকে বাদশা মারা গেলে তাঁর সন্তান আব্দুর রাজ্জাক ওই ভবনের মালিকানা পান। আব্দুর রাজ্জাক গত দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে ভাঙ্গুড়া উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন।

গত দুই বছর আগে আব্দুর রাজ্জাক মারা যান। তবে তাঁর জীবদ্দশায়ও ওই ভবনের মূল স্তম্ভের ওই পাকিস্তানি পতাকা ও লেখা অপসারণ করা হয়নি। তাঁদের পরিবার প্রভাবশালী হওয়ায় এ নিয়ে এলাকাবাসীও এত দিন প্রকাশ্যে কিছু বলতে সাহস পায়নি। কিন্তু আব্দুর রাজ্জাকের মৃত্যুর পর ভবনটির নতুন মালিক সোহেল প্রামাণিককে এলাকাবাসী ভবনের ওই পাকিস্তানি পতাকা ও লেখা অপসারণের অনুরোধ জানায়। সম্প্রতি ভবনটি সংস্কারকাজ শুরু করায় চলতি সপ্তাহে ওই পতাকা ও লেখা অংশটুকু ভেঙে ফেলা হয়।

মন্তব্য