kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

ত্রিশালের ভয়ংকর বখাটে সুমন

স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনায় দায়ীদের শাস্তি দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ ও ত্রিশাল প্রতিনিধি   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নাম তার সুমন (২০)। বাবার নাম বাবুল মিয়া। বাসা ত্রিশাল উপজেলার পৌর শহরে। তার বখাটেপনায় অতিষ্ঠ স্থানীয় লোকজন। এ সুমনই ত্রিশালের চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্রী গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি। এরই মধ্যে অন্য দুই আসামি পাকড়াও হলেও সুমনকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। এদিকে ওই ধর্ষণের ঘটনায় দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে ময়মনসিংহ শহরের শহীদ ফিরোজ-জাহাঙ্গীর চত্বরে মানববন্ধন করেছে জেলা মহিলা পরিষদ।

গত ১৪ সেপ্টেবর বিকেলে ত্রিশালের এক স্কুলছাত্রীকে অপহরণ করে নির্যাতন চালায় সুমন ও তার সঙ্গীরা। অপহরণের প্রায় ১০ ঘণ্টা পর ভুক্তভোগীকে মহাসড়কের পাশে ফেলে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় ১৫ সেপ্টেম্বর ত্রিশাল থানায় মামলা হয়েছে।

স্থানীয়রা বলছে, মামলার প্রধান আসামি সুমন ভয়ংকর বখাটে। তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী। সুমন ও তার সঙ্গীদের বখাটেপনার কারণে স্কুল-কলেজের ছাত্রীরা নির্বিঘ্নে যাতায়াত করতে পারে না। কিছুদিন আগে সুমন এক ছাত্রীর ভাইকে মারধর করেছিল। পরে মীমাংসার নামে তা ধামাচাপা দেওয়া হয়। সুমন ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে পুলিশও ব্যবস্থা নেয়নি।

ভুক্তভোগীর পরিবার জানিয়েছে, ঘটনার পর মামলা করায় সুমন নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে। এমনকি ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে চিকিৎসাধীন ওই ছাত্রীকে হুমকি দেওয়া হয়েছে।

ময়মনসিংহ জেলা মহিলা পরিষদের সভাপতি মনিরা বেগম অনু অবিলম্বে সুমনসহ অন্য আসামিদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

 

মন্তব্য