kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ মে ২০১৯। ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৮ রমজান ১৪৪০

ভুল সবই ভুল

পিরামিড বানিয়েছে ইহুদি দাসরা

সবাই সত্যি জানে—এমন অনেক কথা পরে যাচাই করে দেখা গেছে, সেগুলো মিথ্যা। লিখছেন আসমা নুসরাত

১০ জুন, ২০১৭ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পিরামিড বানিয়েছে ইহুদি দাসরা

হেরোডটাসও বলেছিলেন এ কথা যে ফারাওরা ইহুদি দাসদের দিয়ে বানিয়ে নিয়েছে পিরামিড। তারপর ১৯৫৬ সালে হলিউডের টেন কমান্ডমেন্টস ছবিতেও দেখা গেল ফারাওয়ের লোকজন দাসদের চাবুক মেরে তৈরি করাচ্ছে পিরামিড। তারপর ১৯৭৭ সালে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী মেনচেম বেগিন মিসর বেড়াতে গিয়ে বললেন, ইহুদিরাই তৈরি করেছে পিরামিড। এসব দেখে-শুনে জেরুজালেমের হিব্রু বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব আর্কিওলজির অধ্যাপক আমিহাই মাজার আর চুপ থাকলেন না। বললেন, না, ইহুদিরা গিজার পিরামিডগুলো বানায়নি। কারণ তখন ইহুদিরা ছিলই না। তারপর ২০১০ সালে সত্যি সত্যি গিজায় একটি কবরস্থান খুঁজে পাওয়া গেল, যেটির বয়স চার হাজার বছরের কম নয়। গবেষকরা তাতে পিরামিড নির্মাতাদের কবর দেখতে পেলেন। কবরগুলোর পাশে এমন পাত্র পেলেন, যাতে পানীয় আর রুটি রাখা ছিল। মৃত ব্যক্তি যেন পুনর্জীবিত হয়ে ক্ষুধায় কষ্ট না পায় তার জন্য কবরে খাবার দিয়ে দেওয়ার চল ছিল তখনকার মিসরে। কিন্তু এমনটি কোনো দাসের জন্য নিশ্চয়ই আশা করা যায় না। কারা বানিয়েছে পিরামিড? মিসরবিদ আর ঐতিহাসিকদের মধ্যে অনেক দিন ধরেই প্রশ্নটি ঘুরছিল। তর্ক-বিতর্কও চলছিল। হার্ভার্ড সেমিটিক মিউজিয়ামের মিসরবিদ মার্ক লেহনার প্রশ্নটি মাথায় নিয়েই প্রথম মিসরে যান ১৯৭৩ সালে। লেহনারের পূর্বসূরিরাও নিশ্চিত ছিলেন পিরামিডগুলো একজন ফারাওয়ের আমলে তৈরি হওয়া সম্ভব নয়। লেহনার ধারণা করেছিলেন, একটি পিরামিডের জন্য কম করেও ২০ হাজার শ্রমিক কাজ করেছে। তিনি জানতে চাইছিলেন, এ শ্রমিকদল কোথা থেকে এসেছিল? লেহনার একসময় একটি রান্নাঘরও খুঁজে পেলেন, যেটিতে শ্রমিকদের জন্য খাবার তৈরি হতো। লেহনারের গবেষণা ফলাফল নিয়ে একটি প্রদর্শনী হয় ২০১০ সালে। সেখানে মিসরের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের প্রধান জাহি হাওয়াস জানিয়েছেন, পিরামিডের কর্মীরা দাস ছিল না; বরং মজুর ছিল। ইংরেজিতে শব্দটি হলো, পেইড লেবারস। হাওয়াস আরো জানিয়েছেন, পিরামিড নির্মাতারা নিয়মিতই গোশত খেত এবং তিন মাস পর পর দল বদল (শিফট চেইনজ) হতো। একটি পিরামিড তৈরিতে ১০ হাজার শ্রমিকের ৩০ বছর সময় লাগত। শেষে খননকাজের তত্ত্বাবধায়ক এডেল ওকাসা বলেছেন, তবে তাঁরা দাস না হলেও তাঁদের কঠোর শ্রম দিতে হতো। কারণ তাঁদের কংকালে আর্থ্রাইটিসের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

মন্তব্য