kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৬ আগস্ট ২০২২ । ১ ভাদ্র ১৪২৯ । ১৭ মহররম ১৪৪৪

সিডনি ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও গ্র্যাজুয়েশন সিরিমনি অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ জুন, ২০২২ ২৩:৫০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সিডনি ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও গ্র্যাজুয়েশন সিরিমনি অনুষ্ঠিত

প্রযুক্তি নির্ভর সৃজনশীল শিক্ষা বিস্তারে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে আরো বেশি মনোযোগী হওয়ার আহবান জানিয়েছেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আব্দুল্লাহ আল জ্যাকব এমপি।

আজ শুক্রবার রাজধানীর গুলশানে সিডনি ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও গ্র্যাজুয়েশন সিরিমনিতে তিনি এ আহবান জানান। একই সঙ্গে দেশের বিভিন্ন ইংলিশ মিডিয়াম শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতেও শিক্ষার্থীদের জন্য খেলাধুলার ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে বলেন তিনি।

স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মাইনুল মৃধা বলেন, বাস্তবিক জ্ঞান বিকাশ আর প্রযুক্তির সম্মিলনে আমরা শিশুদের একটু একটি সুন্দর শিক্ষাজীবন দিতে সব ধরনের আয়োজন নিশ্চিত করেছি স্কুলটিতে।

বিজ্ঞাপন

যা ইতিমধ্যে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের কাছে প্রমাণিত হয়েছে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের যুগে আমাদের এসব শিক্ষার্থীরাই আগামীর বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে বলে আশা করেন স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মি. মাইনুল।

ব্রিটিশ কাউন্সিলের পরিচালক (পরীক্ষা) জিম ও’নেইল তার বক্তব্যে সিডনি ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের শিক্ষা ব্যবস্থাপনায় সন্তোষ প্রকাশ করে আরো সামনের দিকে এগিয়ে যেতে শিক্ষকদের উৎসাহিত করেন।

বাংলাদেশ ক্যামব্রিজ এসেসমেন্ট ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের কান্ট্রিম্যানেজার শাহিন রেজা বলেন, আগামীর বিশ্বকে এগিয়ে নিতে শিশুকে যেসব বাস্তবিক জ্ঞানের শিক্ষা দেওয়া দরকার তার সবটাই করছে সিডনি স্কুল ম্যানেজমেন্ট। এর ধারাবাহিকতাকে বজায় রাখতে অভিভাবকদেরও সচেতন থাকার পরামর্শ দিয়েছেন এই আন্তর্জাতিক শিক্ষা ব্যবস্থাপক।

অস্ট্রেলিয়ান হাই কমিশনের পরিচালক (ট্রেড এন্ড ইনভেস্টমেন্ট) মোস্তাফিজুর রহমান তার বক্তব্যে বলেন, শিশুরা স্কুলে শুধু পড়াশুনা শিখলেই হবে না, তাদেরকে জীবনধর্মী শিক্ষায়ও শিক্ষিত হতে হবে। যেখানে প্রযুক্তি নির্ভর সৃজনশীলতাকে গুরুত্ব দিতে হবে বেশি।

সাবেক সেনা কর্মকর্তা মেজর জেনারেল শাহেদুল হক বলেন, আমাদের সময়কার শিক্ষা ব্যবস্থার চেয়ে বর্তমানের আধুনিক শিক্ষা অগ্রসর করছে আমাদের নতুন প্রজন্মকে। এদেরকে প্রতিনিয়ত প্রস্তুত করতে স্কুলের পাশাপাশি অভিভাবকদেরকেও সচেতন থাকতে হবে।

এ সময়ে গুলশান ক্লাবের প্রেসিডেন্ট রফিকুল আলম হেলাল তার বক্তব্যে বলেন, শিশুদের ওপর পড়াশোনার বোঝা শুধু চাপিয়ে দিলেই হবে না, তাদেরকে সামাজিক ও সাংস্কৃতিকভাবেও বিকশিত করতে হবে। তবেই এই প্রজন্ম সফলভাবে বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে। পরে ছিল শিক্ষার্থীদের মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক পরিবেশনা, যেখানে ছিল তাদের সৃজনশীলতার নান্দনিক প্রকাশ।

অনুষ্ঠানে শিক্ষক ও অভিভাবকগণ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন প্রাথমিক ও লেভেল, এ লেভেলের শিক্ষার্থীদের হাতে আমন্ত্রিত অতিথিরা সার্টিফিকেট ও মেডেল তুলে দেন।



সাতদিনের সেরা