kalerkantho

সোমবার । ২২ আষাঢ় ১৪২৭। ৬ জুলাই ২০২০। ১৪ জিলকদ  ১৪৪১

করোনা কেড়ে নিল আশরাফুলের পরিবারের সঙ্গে মিলিত হওয়ার স্বপ্ন

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

২৩ এপ্রিল, ২০২০ ২২:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনা কেড়ে নিল আশরাফুলের পরিবারের সঙ্গে মিলিত হওয়ার স্বপ্ন

পরিবারের সঙ্গে ঈদ কাটাতে পছন্দ মতো কেনাকাটা করছিলেন আশারাফুল। পরিবারের সদস্যরাও তাদের পছন্দের পোশাক, প্রসাধনীর কথা জানাতে মাঝে মাঝেই ফোন করছিলেন। এরই মধ্যে প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ১৮ এপ্রিল সৌদি আরবে কর্মরত থাকা আশরাফুলের মৃত্যু হয়। ঈদে পরিবারের সঙ্গে মিলিত হওয়ার স্বপ্ন শেষ হয়ে যায় আশরাফুলের।

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ভাদগ্রাম ইউনিয়নের ঘুগী গ্রামে আশরাফুলের বাড়ি। তার পিতার নাম মৃত আব্দুল মজিদ। বৃহস্পতিবার আশরাফুলের ছোট ভাই মো. রফিকুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন, প্রায় ১৯ বছর ধরে তার ভাই সৌদি আরবের মদিনা শরীফে আল হামরা প্লাস্টিক ফ্যাক্টরিতে কাজ করছেন। ২০১৮ সালে সর্বশেষ ছুটিতে বাড়ি এসেছিলেন।

তিনি বলেন, রমজান ও ঈদ উপলক্ষে আগামী ২০ মে ছুটিতে বাড়ি আসার কথা ছিল তার। বাড়ি আসবে বলে কেনাকাটা করে সব কিছু ঠিক করে বাড়িতে ফোন করেছিলেন। আমরা সবাই অপেক্ষা করেছিলাম ভাইয়ের জন্য। কিন্তু তার আর দেশে আসা হলো না। গত ১১ এপ্রিল আশরাফুলসহ ওই কম্পানির ৫ জন শ্রমিক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন। ৫ জনের মধ্যে ৪ জন সুস্থ হলেও ১৮ এপ্রিল আশরাফুলের মৃত্যু হয়। 

বুধবার (২২ এপ্রিল) কম্পানির ফোরম্যান মো. সুমন মিয়া টেলিফোনে আশারাফুলের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন বলে তার ভাই রফিকুল ইসলাম এবং একই গ্রামের স্কুল শিক্ষক মো. সেলিম আল মামুন জানিয়েছেন। 

এদিকে, আশরাফুলের মৃত্যুর খবর বাড়িতে পৌঁছলে গ্রামের শত শত লোকজন বাড়িতে ভিড় জমান বিষয়টি জানতে। সৌদি আরবের মদিনা শরীফে আল হামরা প্লাস্টিক ফ্যাক্টরির কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং মালিক পক্ষ তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানিয়েছেন আশরাফুলের লাশ দেশে পাঠানো সম্ভব হচ্ছে না। সৌদি আরবেই সরকারি নিয়মে লাশ দাফন করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা