kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২০ জুন ২০১৯। ৬ আষাঢ় ১৪২৬। ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্প

রাজউকের ৫ বছরের সব বোর্ড সভার সিদ্ধান্তের কপি চেয়েছেন হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্প বিষয়ে ২০১৪ সালের ১৩ মার্চের পর থেকে গতকাল বুধবার পর্যন্ত অনুষ্ঠিত রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) সব বোর্ড সভার সিদ্ধান্তের অনুলিপি হাইকোর্টে দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে বন, উন্মুক্ত স্থান, খেলার মাঠ, পার্ক, জলাশয় ইত্যাদি সুস্পষ্টভাবে প্রদর্শন করে চতুর্থ সংশোধিত লে-আউট প্ল্যান এবং প্রস্তাবিত পঞ্চম সংশোধিত লে-আউট প্ল্যান ৩০ জুনের মধ্যে আদালতে জমা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া আগামী ৪ জুলাই পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত।

বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল এই আদেশ দেন। আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক), এএলআরডি, বেলা, বাপা, আইএবি, পবা ও নিজেরা করি নামের সাতটি সংগঠনের করা এক আবেদনে আদালত এই আদেশ দেন। আবেদনকারীপক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান ও সাঈদ আহমেদ কবীর। রাজউকের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার তানজিব-উল-আলম।

হাইকোর্ট ২০১৪ সালের ১৩ মার্চ এক রায়ের মাধ্যমে পূর্বাচল প্রকল্পের জন্য রাজউকের দাখিল করা চতুর্থ সংশোধনী প্ল্যান চূড়ান্তভাবে অনুমোদন দেন। ওই রায়ে বলা হয়, আদালতের অনুমতি ছাড়া চতুর্থ সংশোধিত প্ল্যানে চিহ্নিত বন, লেক, খাল, পার্ক, খেলার মাঠ ও উদ্যান, সবুজবেষ্টনী ও নগরায়ণের জন্য করা সবুজ আচ্ছাদনে কোনো পরিবর্তন আনতে পারবে না রাজউক। এর পরও চতুর্থ সংশোধিত প্ল্যানের ব্যত্যয় ঘটিয়ে নতুন প্লট সৃষ্টির জন্য পঞ্চম সংশোধনী প্ল্যান অনুমোদনের জন্য ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে আদালতে আবেদন করে রাজউক। রিট আবেদনকারী আইনজীবীর দাবি, চতুর্থ সংশোধিত প্ল্যানে চিহ্নিত সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও খেলার মাঠ (প্রায় ১৪০ একর) সরিয়ে নিয়ে তা অন্যত্র বরাদ্দ দেওয়ার প্রস্তাব করা হয় পঞ্চম সংশোধনী প্ল্যানে। হাইকোর্ট একই বছরের ১৭ ডিসেম্বর এক আদেশে রাজউকের এই প্রস্তাবের প্রায় পুরোটাই বাতিল করে দেন। তবে তিনটি (১০০ তলাবিশিষ্ট ভবন, রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো ও রাজউকের কেন্দ্রীয় স্ট্যাকইয়ার্ড) প্রস্তাবিত পরিবর্তনের মধ্যে শুধু ১০০ তলা ভবনের অনুমোদন দেওয়া যেতে পারে মর্মে আদেশ দেন। আদালতের আদেশে এটি স্পষ্টই উল্লেখ করা হয় যে চতুর্থ সংশোধনীতে যেখানে বাণিজ্যিক এলাকা দেখানো আছে, শুধু সেখানেই এই ১০০ তলা ভবনের জন্য অনুমোদন দেওয়া যেতে পারে।

মন্তব্য