kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২০ জুন ২০১৯। ৬ আষাঢ় ১৪২৬। ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

রূপপুরে বালিশ কাণ্ড

গণপূর্ত পাবনার নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদুল আলমকে প্রত্যাহার

নিজস্ব প্রতিবেদক ও পাবনা প্রতিনিধি   

২৩ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গণপূর্ত পাবনার নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদুল আলমকে প্রত্যাহার

গণপূর্ত বিভাগ পাবনার নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদুল আলমকে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। পাবনার গণপূর্ত সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী দেবাশীষ চন্দ্র সাহা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, গণপূর্তের প্রধান প্রকৌশলীর আদেশ বলে পাবনার নির্বাহী প্রধান মাসুদুল আলমকে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়।

সূত্র মতে, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের গ্রিন সিটি আবাসিক প্রকল্পে বিভিন্ন জিনিসপত্র কেনাকাটায় অকল্পনীয় দুর্নীতির সূত্রে মাসুদুল আলমকে প্রত্যাহার করা হলো।

সম্প্রতি গ্রিন সিটির ১১০টি ফ্ল্যাটের জন্য বিভিন্ন পণ্যের কেনাকাটার নথিপত্র ঘেঁটে দেখা যায়, সেখানে প্রতিটি বালিশ কেনা হয়েছে পাঁচ হাজার ৯৫৭ টাকায়। ওই বালিশ বিল্ডিংয়ে ওঠাতে খরচ ধরা হয় ৭৬০ টাকা। তা ছাড়া প্রতিটি বিছানা কেনা হয় পাঁচ হাজার ৯৮৬ টাকায়, যা ফ্ল্যাটে তোলার খরচ ধরা হয় ৯৩১ টাকা। এভাবে টিভি, ফ্রিজ, ওয়াশিং মেশিন, মাইক্রোওয়েভ, বৈদ্যুতিক চুলা, কেটলি, রুমহিটার, ইলেকট্রিক আয়রন, টেলিভিশন, ফ্রিজ ইত্যাদি আসবাব ক্রয় ও ফ্ল্যাটে ওঠানোর নামে অস্বাভাবিক অর্থ ব্যয় দেখানোয় কয়েক দিন ধরে গণমাধ্যমে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় বইছে।

সাগরচুরি বলল টিআইবি

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের আবাসিক ভবনের কেনাকাটায় অতিমাত্রায় অনিয়মের অভিযোগ ওঠায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে এ দুর্নীতিকে সাগরচুরি বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার এক বিবৃতিতে সংস্থাটি এসব অভিযোগের সুষ্ঠু তদন্ত ও দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি এই প্রকল্পের সর্বাঙ্গীন স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিতে সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক পদক্ষেপের আহ্বান জানিয়েছে। টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, এই বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে এক লাখ ১৩ হাজার কোটি টাকারও বেশি। সেখানে মাত্র ২৫ কোটি টাকা খরচের ক্ষেত্রেই যে ভয়াবহ অনিয়মের চিত্র দেখা যাচ্ছে, তাতে শঙ্কিত হতেই হয়।

মন্তব্য