kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দাবি

পাকিস্তানিদের জন্য ভিসা বন্ধ হয়নি

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

২২ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গত ১৩ মে থেকে পাকিস্তানের ইসলামাবাদে বাংলাদেশ হাইকমিশন কোনো ভিসা ইস্যু করেনি। তবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন গতকাল মঙ্গলবার দাবি করেছেন, পাকিস্তান বা কোনো রাষ্ট্রের জন্য ভিসা বন্ধ করেনি বাংলাদেশ। তবে তিনি ইঙ্গিত করেছেন, পাকিস্তানই বাংলাদেশি কর্মকর্তা, বিশেষ করে পাকিস্তানে বাংলাদেশ হাইকমিশনে ভিসা বিভাগের দায়িত্ব পালন করবেন এমন ব্যক্তিদের ভিসা দিচ্ছে না। এ কারণে বাংলাদেশি কর্মকর্তাদের অনুপস্থিতিতে প্রক্রিয়ায় সমস্যা হতে পারে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের বলেন, বাংলাদেশি যে কর্মকর্তা ভিসা দেওয়ার জন্য পাকিস্তানে যাবেন তাঁকে পাকিস্তান ভিসা দিচ্ছে না। অন্যদিকে ওই কর্মকর্তার অবর্তমানে যাঁকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল তাঁরও ভিসার মেয়াদ বাড়াচ্ছে না পাকিস্তান।

মন্ত্রী আরো বলেন, ‘পাকিস্তানে আমাদের কনস্যুলার সেকশনে (ভিসা প্রদানকারী কর্মকর্তা) যিনি যাবেন তাঁকে পাকিস্তান ভিসা দেয় না। তিনি যদি যেতে না পারেন তবে কাজটা করবে কে? তাঁর অনুপস্থিতিতে আমাদের অন্য একজন কাজ করছিলেন। পত্রিকায় দেখলাম, তাঁর ভিসার মেয়াদও বাড়ায়নি। তো ওরাই জোর করে আমাদের ঝামেলায় ফেলছে। আমাদের লোক না থাকলে কেমন করে এগুলো  প্রসেস করবেন?’

গত সাত বা ১০ দিনে পাকিস্তানে বাংলাদেশ হাইকমিশন পাকিস্তানিদের কয়টি ভিসা ইস্যু করেছে জানতে চাইলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিষয়টি তাঁর জানা নেই। তবে তিনি মন্ত্রী হওয়ার পর পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশে লোকজনের আসা-যাওয়া আছে। কিন্তু পাকিস্তানে বাংলাদেশ হাইকমিশনে ভিসা শাখায় কর্মকর্তার ঘাটতির কারণে সেই সংখ্যাটি হয়তো কম।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘পাকিস্তান একটি নন-ইস্যু। কারণ আমরা পাকিস্তানকে ভিসা দেওয়া বন্ধ করিনি। তবে কোনো ব্যক্তিবিশেষ হয়তো ভিসা পাননি—এমনও হতে পারে।’

বাংলাদেশ পাকিস্তানিদের ভিসা দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে—গতকাল বিভিন্ন গণমাধ্যমে এমন প্রতিবেদন প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, খবরটি উল্টো হওয়া উচিত। পাকিস্তান বাংলাদেশের লোকজনকে ভিসা দেয় না।

তিনি বলেন, ‘আমরা কিন্তু ভিসা বন্ধ করিনি। কিন্তু ব্যক্তিবিশেষ হয়তো নাও পেতে পারে। কারণ কারো সঙ্গে যদি বিশেষ সম্পর্ক থাকে, বিশেষ করে এই যুগে সন্ত্রাসের ব্যাপারে সবাই একটু খেয়াল করে থাকে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা