kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

কৃষিমন্ত্রী বললেন

জরুরি ভিত্তিতে ধান কিনতে বলা হয়েছে মিলারদের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চালকল মালিকদের জরুরি ভিত্তিতে ধান কিনতে বলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, ‘মিলারদের জরুরি ভিত্তিতে ধান কেনার জন্য বলেছি। সরকার ১২ লাখ টন ধান ও দুই লাখ টন চাল দ্রুত কিনবে।’

গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিল (বিএআরসি) অডিটরিয়ামে সার সুপারিশমালা হাতবই-২০১৮-এর মোড়ক উন্মোচন এবং দোয়া ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

কৃষিমন্ত্রী আরো বলেন, ‘আমাদের তিন কোটি ৫০ লাখ টন চাল উৎপাদনের বিপরীতে ১০-১২ লাখ টন কিনলে বাজারে খুব বেশি প্রভাব পড়বে না। তবে সীমিত পর্যায়ে রপ্তানিরও উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। ভারত, পাকিস্তান ও থাইল্যান্ডের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে আন্তর্জাতিক বাজারে আমাদের প্রবেশ করতে হবে।’

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘ধান কাটা ও লাগানোসহ কৃষি কাজে শ্রমিক এখন বড় সমস্যা। কৃষি যান্ত্রিকীকরণ এ সমস্যা উত্তরণের একটি পথ। এ জন্য কৃষিতে যান্ত্রিকীকরণ শুরু হয়েছে এবং অচিরেই শতভাগ যান্ত্রিকীকরণ সম্পন্ন হবে। কৃষিতে ৯ হাজার কোটি টাকা প্রতিবছর ভর্তুকি থেকে তিন হাজার কোটি টাকা যান্ত্রিকীকরণে ব্যয় করা হবে।’

তিনি বলেন, ১৯৪৭ সাল থেকে সব সরকার খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের কথা বলেছে, কিন্তু কেউ পারেনি। খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জিত হয়েছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। নতুন নতুন ফসলের জাত উদ্ভাবন ও আধুনিক কৃষির মাধ্যমে। কৃষকদের কল্যাণে সরকার সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।  বিএআরসির চেয়ারম্যান ড. মো. কবির ইকরামুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য আব্দুল মান্নান এমপি ও কৃষিসচিব মো. নাসিরুজ্জামান। সার সুপারিশমালা হাতবই-২০১৮-এর ওপর বিস্তারিত উপস্থাপনা দেন সার্ক কৃষি কেন্দ্রের পরিচালক ড. শেখ মো. বখতিয়ার।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা