kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

জীববৈচিত্র্য দিবস আজ

সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বেড়ে ১১৪

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বেড়ে ১১৪

ইউনেসকো ঘোষিত বিশ্ব ঐতিহ্যের স্থান সুন্দরবনের বাংলাদেশ অংশে বর্তমানে বাঘের সংখ্যা ১১৪টি। বন বিভাগের সর্বশেষ শুমারিতে ১১৪টি বাঘের অবস্থান নিশ্চিত হওয়া গেছে। তিন বছর আগে ২০১৫ সালের বাঘশুমারিতে দেখা গেছে, সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা ছিল ১০৬টি। সে হিসাবে তিন বছরের ব্যবধানে বাঘ বেড়েছে আটটি।

গত বছরের বাঘশুমারির প্রতিবেদনটি আজ বুধবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বন ভবনে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করার কথা রয়েছে। জানতে চাইলে উপপ্রধান বন সংরক্ষক জহির উদ্দিন আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা স্থিতিশীল আছে। উল্লেখযোগ্য হারে বাড়েনি আবার কমেওনি।’ তিনি বলেন, ‘আমাদের টাইগার অ্যাকশন প্ল্যানে (২০১৮-২০২৭) বলা আছে, প্রতি ১০০ বর্গকিলোমিটারে বাঘের ঘনত্ব হবে ৪.৫টি, যেটি এখন আছে প্রতি ১০০ বর্গকিলোমিটারে ২.১৭টি। সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা বাড়াতে আমরা কাজ করছি।’

বন বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, ২০০৪ সালে বাঘের পায়ের ছাপের মাধ্যমে যে শুমারি করা হয়েছিল, তখন বাঘের সংখ্যা ছিল ৪০৪টি। ২০১৫ সালের শুমারিতে তা কমে দাঁড়ায় মাত্র ১০৬টিতে। ওই শুমারিটি করা হয়েছিল ক্যামেরা ট্র্যাপিংয়ের মাধ্যমে। যদিও বাঘ বিশেষজ্ঞরা বরাবরই বলে আসছেন, বাঘশুমারির জন্য বাঘের পায়ের ছাপের মাধ্যমে শুমারি করা কোনো বৈজ্ঞানিক পথ নয়। ক্যামেরা ট্র্যাপিংয়ের মাধ্যমেই শুধু বাঘের সঠিক চিত্র পাওয়া যায়।

বন বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, গত বছরের ক্যামেরা ট্র্যাপিংয়ের মাধ্যমে বাঘশুমারি করতে গিয়ে ২৩৯টি পয়েন্টে ৪৯১টি ক্যামেরা প্রতিস্থাপন করা হয়। প্রায় এক বছর ধরে চলা এই শুমারি করতে গিয়ে আড়াই হাজার ইমেজ সংগ্রহ করা হয়েছে, যাতে বাঘের সংখ্যা মিলেছে ১১৪টি। তাঁরা বলছেন, খাবারের অভাব, রোগ, প্রাকৃতিক দুর্যোগসহ নানা কারণে সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা কমছে।

আজ আন্তর্জাতিক জীববৈচিত্র্য দিবস

এদিকে বিশ্বব্যাপী আজ পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক জীববৈচিত্র্য দিবস। এবারের জীববৈচিত্র্য দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে, ‘আমাদের জীববৈচিত্র্য, আমাদের খাদ্য; আমাদের স্বাস্থ্য’। খাদ্যব্যবস্থা, পুষ্টি, স্বাস্থ্যের বিষয়ে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য এবারের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা