kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

ফের ধর্মঘট-অবরোধে পাটকল শ্রমিকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা   

১৯ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শুক্রবার বিরতি দিয়ে শনিবার আবারও বিজেএমসি (বাংলাদেশ জুট মিলস করপোরেশন) খুলনা জোনের ৯টি পাটকলের শ্রমিকরা কাজ করেনি। পাশাপাশি বিকেল ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত তারা রাজপথ-রেলপথ অবরোধ করে রাখে। সড়কের ওপরই তারা নামাজ আদায় ও ইফতারিও করে। এদিকে পাটকল শ্রমিকদের দাবির প্রতি সমর্থন জানিয়ে নাগরিকদের পক্ষ থেকে সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীর পিকচার প্যালেস মোড়ে এবং বিকেলে ছাত্র-শ্রমিক-জনতার পক্ষে খালিশপুরের নতুন সড়কের মোড়ে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

পাটকল শ্রমিক লীগ এবং সিবিএ ও নন-সিবিএ ঐক্য পরিষদ ৯ দফা দাবিতে এই অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট এবং সড়ক ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে। বিকেল ৪টায় বিভিন্ন মিলের শ্রমিকরা মিছিলসহ খুলনা-যশোর রোডের নতুন সড়কের মোড়ে জড়ো হতে থাকে। তারা রাস্তা-সোনাডাঙ্গা বাইপাস সড়কের কবির বটতলা এবং দৌলতপুরে জমায়েত হয়। এক অংশ খুলনা-যশোর রেললাইনের নতুন সড়কের কাছে অবস্থান নেয়। জমায়েতস্থলে শ্রমিক নেতারা বক্তব্য দেন।

সমাবেশে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ পাটকল শ্রমিক লীগ এবং সিবিএ ও নন-সিবিএ ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক মোতাহার হোসেন, বাংলাদেশ পাটকল শ্রমিক লীগ খুলনা-যশোর অঞ্চলের আহ্বায়ক ও ক্রিসেন্ট জুটমিলের সিবিএ সভাপতি মো. মুরাদ হোসেন, ক্রিসেন্ট জুটমিল সিবিএ সভাপতি সোহরাব হোসেন, প্লাটিনাম জুটমিলের খলিলুর রহমান প্রমুখ। নেতারা বলেন, ‘১২ থেকে ১৪ সপ্তাহ মজুরি না পেয়ে শ্রমিকরা সড়কে এসে দাঁড়িয়েছে। নানাভাবে বলা হচ্ছে, মজুরি পরিশোধ করা হবে, এবার আশ্বাস নয়, মজুরি চাই। শুধু বকেয়া মজুরি পরিশোধ নয়, মজুরি কমিশনের স্লিপ হাতে পেলেই শ্রমিকরা কাজে ফিরবে।’

পাট খাতে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ, বকেয়া মজুরি-বেতন পরিশোধ, জাতীয় মজুরি ও উৎপাদনশীলতা কমিশনের  রোয়েদাদ ২০১৫ কার্যকর, অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক-কর্মচারীদের পিএফ ও গ্রাচ্যুইটির অর্থ পরিশোধ, চাকরিচ্যুত শ্রমিক-কর্মচারীদের পুনর্বহাল—সব মিলে সেটআপের অনুকূলে শ্রমিক-কর্মচারীদের শূন্যপদের বিপরীতে নিয়োগ এবং স্থায়ীসহ ৯ দফা দাবিতে গত ১৩ মে থেকে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট এবং প্রতিদিন বিকেল ৪টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত রাজপথ-রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালন করছে।

সংহতি ও মানববন্ধন : ধর্মঘটি পাটকল শ্রমিকদের সমর্থনে খুলনার পিকচার প্যালেস মোড়ে শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে শ্রমিকদের দাবির প্রতি সমর্থন জানিয়ে বক্তব্য দেন সম্মিলিত নাগরিক পরিষদের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট কুদরত-ই-খুদা, নারী নেত্রী সুতপা বেদজ্ঞ প্রমুখ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা