kalerkantho

বুধবার । ২২ মে ২০১৯। ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৬ রমজান ১৪৪০

শ্রমিকরা জগ ভরে ওয়াসার পানি খেয়েও অসুস্থ হয়নি : মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৬ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শ্রমিকরা জগ ভরে ওয়াসার পানি খেয়েও অসুস্থ  হয়নি : মন্ত্রী

জনসমক্ষে পানির মানের প্রতিবেদন প্রকাশের দাবি করে গতকাল কাওরান বাজার ওয়াসা ভবনের সামনে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন (পবা) মানববন্ধন করে। ছবি : কালের কণ্ঠ

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেছেন, ‘পাইপলাইনের পানি কে খাবে কে খাবে না সেটি তার ঝুঁকি নেওয়ার ওপর নির্ভর করবে। শ্রমিকরা জগ ভরে ওয়াসার পানি খায়, কিন্তু গত এত বছরেও অসুস্থ হয়নি।’

গতকাল বৃহস্পতিবার অগ্নিনির্বাপণ প্রতিরোধে করণীয় ঠিক করতে সচিবালয়ে এক সভায় এসব মন্তব্য করেছেন তিনি।

গত ২০ এপ্রিল ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাকসিম এ খান ওয়াসার পানিকে শতভাগ সুপেয় দাবি করায় ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন। রাজধানীর জুরাইনের এক বাসিন্দা ওয়াসার পানি দিয়ে শরবত বানিয়ে খাওয়াতে এসেছিলেন এমডিকে।

ওয়াসার সাম্প্রতিক সময়ের এই সমালোচনার ব্যাপারে মন্ত্রী বলেন, ‘ঢাকা ওয়াসা নিয়ে ইদানীং বেশ কথাবার্তা চলছে। ওয়াসার পানির ৯৯ ভাগ ব্যবহার হয় ধোয়ামোছা, গোসল করাসহ অন্যান্য কাজে। আর এক ভাগ পানি সরবরাহ করা হয় খাওয়ার জন্য। পানি দেখে আমার কাছে কখনোই মনে হয়নি যে এই পানিটার মধ্যে ময়লা আছে। আগের তুলনায় পানির মান উন্নত হয়েছে।’

২০০৯ সালের পর ঢাকা ও চট্টগ্রামে ওয়াসার পানির সরবরাহ বেড়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

পৃথিবীর অন্য কোনো দেশে খাওয়ার পানি সরবরাহ করা হয় না উল্লেখ করে তাজুল ইসলাম বলেন, ‘পৃথিবীর কোনো দেশ শুধু খাওয়ার জন্য আলাদা পাইপলাইন করেছে—এটা আমার জানা নেই। আর এটা খুব ব্যয়বহুল। খাওয়ার পানির মান নিয়ন্ত্রণে ও তদারকির জন্য বছরে ১০-১৫ হাজার কোটি টাকা ব্যয় করতে হবে।’

মন্তব্য