kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ মে ২০১৯। ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৫ রমজান ১৪৪০

সেই মিজানকে হুমকির অভিযোগ ওয়াসার প্রকৌশলীর

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ওয়াসার পানি দিয়ে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালককে (এমডি) শরবত খাওয়াতে চাওয়া সেই মিজানুর রহমানকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে এক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে। গতকাল বুধবার রাজধানীর পূর্ব জুরাইনের হাজি খোরশেদ আলী সরদার সড়কে অবস্থিত মিজানের শ্বশুরের বাসায় গিয়ে ওয়াসার উপসহকারী প্রকৌশলী সৈয়দ নওয়াজ আলী হুমকি ও গালিগালাজ করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে অভিযোগ অস্বীকার করে উল্টো মিজানুর ওয়াসার কর্মকর্তাদের সঙ্গে অসহযোগিতা করেছেন বলে দাবি করেন সৈয়দ নওয়াজ আলী।

মিজানের অভিযোগ, গতকাল হাজি খোরশেদ আলী সড়কের ১৯১৮ নম্বর বাড়িতে যান কয়েকজন কর্মকর্তাসহ ওয়াসার উপসহকারী প্রকৌশলী সৈয়দ নওয়াজ আলী। মিজান তখন বাসার বাইরে ছিলেন। খবর পেয়ে মিজান বাসায় এলে ওয়াসার ওই কর্মকর্তা তাঁকে গালিগালাজ করেন। এ ছাড়া গত মঙ্গলবার ওয়াসার পানি দিয়ে সংস্থাটির এমডিকে শরবত বানিয়ে খাওয়ানোর চেষ্টার ঘটনাকে নাটক বলে অভিহিত করেন।

ওই কর্মকর্তার দাবি, মিজানুর রহমানের বাসা থেকে পানি সংগ্রহ করতে যান তাঁরা। ওই পানি নিয়ে ল্যাবে পরীক্ষার জন্য দেওয়া হবে। এ সময় মিজানের বাসায় গিয়ে পানির বিলের কপি চাইলে তিনি চটে যান। ওয়াসার এমডি না গেলে বাসা থেকে পানির নমুনা দিতেও অস্বীকৃতি জানানো হয়।

ওয়াসার ৭ নম্বর মডস জোনের উপসহকারী প্রকৌশলী সৈয়দ নওয়াজ আলী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘মিজানের বাসা থেকে পানির নমুনা সংগ্রহ করতে গেলে তিনি আমাদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন। বিনা অনুমতিতে কেন তাঁর বাসায় ঢুকেছি সে জন্য তিনি শাসিয়েছেন আমাদের। আমি নিজে মিজানের বাসার টেপের পানি খেয়েছি। পানি পরিষ্কার ও দুর্গন্ধহীন। তাঁর অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই।’

জুরাইনের পানি পরীক্ষা : পূর্ব জুরাইনের দুটি এলাকার পানি নিয়ে ল্যাবে পরীক্ষা করে ফল প্রকাশ করেছে ঢাকা ওয়াসা। এতে ওয়াসার পানি বাংলাদেশ ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মানে উত্তীর্ণ হয়েছে—এমন দেখানো হয়েছে। গতকাল ১৯৯৮ পূর্ব জুরাইন এবং ৭৪৮ কে আলী রোডের টেপের পানি থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে বলে দাবি করেছে সংস্থাটি। দুপুরে পানির নমুনা সংগ্রহ করে সন্ধ্যার মধ্যে ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

মন্তব্য