kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ মে ২০১৯। ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৫ রমজান ১৪৪০

‘টেকনাফ ও সিরাজগঞ্জে দুই মাদক কারবারি নিহত’

টেকনাফ (কক্সবাজার) ও সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি   

২১ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কক্সবাজারের টেকনাফের হোয়াইক্যংয়ে ইয়াবা কারবারি ‘দুই পক্ষের গোলাগুলিতে’ শাহাবুদ্দিন (৩২) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। নিহত মাদক কারবারি হোয়াইক্যং কাঞ্জরপাড়া এলাকায় আব্দুর রহমানের ছেলে। গতকাল শনিবার ভোররাতে হোয়াইক্যং পশ্চিম কাঞ্জরপাড়া তারাবনিয়াছড়ায় আব্দুর রহমানের ধানী জমি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মোস্তফা কামাল (৩২) নামের এক শীর্ষ মাদক কারবারি নিহত হয়েছে। শনিবার মধ্যরাতে উল্লাপাড়া পৌর শহরের ঘোষগাঁতী মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে। তার বিরুদ্ধে মাদকসহ ১১টি মামলা রয়েছে। সে পৌর শহরের কাওয়াক মহল্লার আব্দুর রশিদের ছেলে। উল্লাপাড়া মডেল থানা পুলিশ এ সময় ঘটনাস্থল থেকে মাদকসহ আরো চার কারবারিকে আটক করেছে।

টেকানাফের পুলিশ জানায়, শনিবার ভোররাতে হোয়াইক্যং কাঞ্জরপাড়া এলাকায় ইয়াবা আদান-প্রদানকে কেন্দ্র করে ইয়াবা কারবারি দুই পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি হয়। খবর পেয়ে পুুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছলে ইয়াবা কারবারিরা পালিয়ে যায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে এক ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পেয়ে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

টেকনাফ থানার ইনচার্জ প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য ওই ব্যক্তির মৃতদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। গোলাগুলির স্থান থেকে দুটি দেশে তৈরি এলজি, সাত রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ৯টি কার্তুজের খোসা ও দুই হাজার ৪০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া পৌর শহরের ঘোষগাঁতী মহল্লায় শনিবার মধ্যরাতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনাটি ঘটে। উল্লাপাড়া থানার ওসি দেওয়ান কৈশিক জানান, মাদক বিক্রির সংবাদ পেয়ে শনিবার মধ্যরাতে পুলিশের একটি দল ঘোষগাঁতী এলাকায় অভিযান চালায়। মাদক কারবারিরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। পুলিশের গুলিতে মোস্তফা কামাল গুলিবিদ্ধ হয়। তাকে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে তার মৃত্যু হয়। আটক ব্যক্তিরা হলো ঘোষগাঁতী মহল্লার সনি আহমেদ (৩৫) সেলিম রেজা (২৪), সজীব কুমার সাহা ওরফে গণেশ (২৪) ও সঞ্জয় চন্দ্র সাহা (১৯)।

মন্তব্য