kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

উপকারী তামার ব্রেসলেট

২০ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উপকারী তামার ব্রেসলেট

বাতের ব্যথা : অনেক আগে থেকেই জোর দাবি যে তামা ত্বকের মাধ্যমে রক্তে মিশে যায়। এটা হাড়ের সংযোগস্থলের তরুণাস্থির উন্নতি ঘটায়। ফলে বাতের ব্যথা দূর হয়। যদিও এমন তথ্যের গবেষণাপ্রসূত প্রমাণ নেই। কিন্তু মানবদেহে তামার ব্রেসলেট যে অনেকটা ‘প্লেসবো’ (ক্ষতিকর নয় এমন ওষুধ বা উপকরণ যা সাধারণত রোগীর মানসিক উপকার সাধন করে) হিসেবে কাজ করে তা নিশ্চিত। অন্যান্য প্রাণীর ওপর পরীক্ষা চালিয়ে দেখা গেছে, তামা হাড়ক্ষয় রোগের ঝুঁকি অনেক কমিয়ে দেয়।

ব্যাকটেরিয়াবিনাশী : দেহের ক্ষতকে জীবাণুমুক্ত করতে তামা ব্যবহারের ইতিহাস বেশ পুরনো। তামা নিজগুণে জীবাণুবিনাশী। ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের দুই ঘণ্টার মধ্যে তামার স্পর্শে ৯৯ শতাংশ জীবাণু ধ্বংস হতে পারে। তবে এ কাজে সরাসরি তামার স্পর্শ দরকার। তাই হাতে থাকা তামার ব্রেসলেটটি সরাসরি ক্ষতে লাগানোর পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

রোগ-প্রতিরোধী ব্যবস্থায় সহায়ক : ‘অ্যান্টিঅক্সিডন্ট অ্যান্ড ইমিউন ফাংশন্স’ জার্নালে প্রকাশিত গবেষণাপত্রে বলা হয়, নিউট্রোপেনিয়া সমস্যায় শিশুদের দেহে কপার সাপ্লিমেন্ট প্রয়োগ করলে শ্বেতকণিকার উন্নতি ঘটে।

অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট : তামা একটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। কোলাজেন ও ইলাস্টিনন উৎপাদনে এটা দরকার। এরা হাড় ও ত্বকের কাঠামো তৈরিতে এবং সংযোগস্থলের সংযোজক টিস্যুর গঠনে কাজ করে। 

হৃদস্বাস্থ্য : দেহে তামার পরিমাণ কমে গেলে উচ্চ রক্তচাপ এবং কোলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি পাওয়ার লক্ষণ দেখা গেছে বেশ কয়েকটি গবেষণায়। এর অভাবে হৃদস্বাস্থ্যের অবনতি ঘটে।

স্নায়ুতন্ত্র ও মস্তিষ্ক : তামার ভারসাম্য নষ্ট হলে কিংবা মাত্রা কমে গেলে মস্তিষ্কের নিউরনে সমস্যা দেখা দেয়। তামার ভারসাম্য না থাকলে স্মৃতিশক্তি কমে আসে। কয়েকটি গবেষণায় বলা হয়, কপার সাপ্লিমেন্ট স্মৃতিশক্তি হ্রাসের সমস্যা কমিয়ে আনতে পারে।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া : তামার বিষক্রিয়া মারাত্মক। তবে ব্রেসলেটের মাধ্যমে খুব সামান্য তামা দেহের অভ্যন্তরে প্রবেশ করতে পারে। অনেকে ধাতুসংশ্লিষ্ট অ্যালার্জিতে ভুগতে পারেন। আবার যে অংশে ব্রেসলেট বসে থাকে সেই স্থানের ত্বকের রং বদলে যেতে পারে।

অর্গানিক ফ্যাক্টস অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার

মন্তব্য