kalerkantho

সোমবার। ২৭ মে ২০১৯। ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২১ রমজান ১৪৪০

গণশুনানিতে অভিযোগ

রাজশাহীতে বাস মালিকদের বাধায় সংকটে বিআরটিসি

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

২০ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট করপোরেশনের (বিআরটিসি) গাড়ি চালাতে রাজশাহীর বাস মালিক সমিতির অনুমতি লাগে। এর পরও তাদের বাধায় সড়কে গাড়ি নামানো যায় না। এতে সংকটের মুখে পড়েছে সরকারি এ পরিবহন সংস্থা। গতকাল শুক্রবার রাজশাহী বিভাগীয় সড়ক ও জনপথ কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত গণশুনানিতে এ অভিযোগ করেন বিআরটিসির বগুড়ার ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) মফিজ উদ্দিন ও পাবনার ব্যবস্থাপক ম্যানেজার (প্রশাসন) মোশাররফ হোসেন।

এ গণশুনানিতে সড়ক ও জনপথ বিভাগের কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়। পাশাপাশি রাজশাহী ও পাবনায় বিআরটিএতে গাড়ির ফিটনেস ও ড্রাইভিং লাইসেন্সপ্রাপ্তিতে হয়রানি ও ঘুষ-বাণিজ্য, সড়কে ট্রাকের কাগজ তল্লাশির নামে পুলিশের বাণিজ্য, রাজশাহীতে বৃক্ষরোপণের নামে সরকারি অর্থ লুটপাট, সড়ক ও জনপথ বিভাগের গাড়ি মেরামতের নামে লুটপাটসহ নানা অভিযোগ উঠে আসে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম। তিনি বিভিন্ন অভিযোগের জবাব দেওয়ার পাশাপাশি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের আশ্বাস দেন।

গণশুনানিতে ঠিকাদার সাদেক আলী বলেন, ‘আমরা অনেক ছোট ঠিকাদার এখন কাজ না পেয়ে পথে বসতে চলেছি। হাতে গোনা দুই-তিনজন ঠিকাদার প্রায় সব কাজ করছেন। কিন্তু আমরা তাঁদের কাছে পেরে উঠতে পারছি না।’

ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি রবিউল ইসলাম বলেন, ‘রাস্তায় নামলেই পুলিশ বলে কাগজ দেওয়ার দরকার নেই, যা দেওয়ার দিয়ে চলে যাও। পুলিশ আমাদের মোড়ে মোড়ে হয়রানি করছে। কিন্তু নসিমন-করিমন মহাসড়ক দাপিয়ে বেড়াচ্ছে।’

পাবনা চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক এ বি এম ফজলুর রহমান বলেন, পাবনায় বিআরটিএতে দালাল কর্মকর্তা-কর্মচারীতে একাকার।

গণশুনানি চলাকালে উপস্থিত ছিলেন সড়ক ও জনপথ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব এহসানুল আজিম ও বেলায়েত হোসেন, প্রধান প্রকৌশলী ইবনে আলম হাসান, রাজশাহীর অতিরিক্ত প্রকৌশলী হাবিবুর রহমান প্রমুখ।

মন্তব্য