kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

সড়ক দুর্ঘটনা

বাবা-মেয়েসহ চার জেলায় নিহত ৮

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৯ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দিনাজপুরের চুনিয়াপাড়ায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় বাসের ধাক্কায় বাবা-মেয়েসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে পাজেরো গাড়ির ধাক্কায় প্রাণ গেছে মোটরসাইকেলে থাকা দুই তরুণের। ফেনীতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনা কেড়ে নিয়েছে দুজনের প্রাণ। পঞ্চগড়ের বোদায় বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেছে এক ব্যক্তির। এ ছাড়া নরসিংদীর রায়পুরায় একটি বাস খাদে পড়ে গেলে আহত হয় প্রায় ৪০ জন। কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিদের খবরে বিস্তারিত—

দিনাজপুর : দুর্ঘটনাটি ঘটে সদর উপজেলার চুনিয়াপাড়া এলাকায়; দিনাজপুর-গোবিন্দগঞ্জ মহাসড়কে। গতকাল সকাল ১০টার দিকে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাকে যাত্রীবাহী একটি বাস ধাক্কা দিলে বাবা-মেয়েসহ তিনজন নিহত হয়। আহত হয় দুজন। নিহতরা হলেন—নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার জামালপুর গ্রামের আশরাফুল আলম (৩২), তাঁর মেয়ে আইভি (১০) এবং অটোরিকশার চালক সাজদার খলিফা (৪৮)।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : দুর্ঘটনাটি ঘটে সরাইল উপজেলার বেড়তলা এলাকায়; কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে। সেখানে গতকাল সকালে একটি মোটরসাইকেলকে একটি পাজেরো গাড়ি ধাক্কা দিলে দুই তরুণের মৃত্যু হয়। তারা হলো ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার কাজীপাড়ার তৌহিদ মিয়ার ছেলে নাহিদ মিয়া (১৭) ও একই এলাকার মোর্তুজ আলীর ছেলে পারভেজ (১৮)। খাঁটিহাতা হাইওয়ে পুলিশের ওসি মো. হোসেন সরকার জানান, ওই দুই তরুণ আশুগঞ্জ যাচ্ছিল। ওই সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পাজেরো জিপ তাদের মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা মারে।

ফেনী : পৃথক দুর্ঘটনায় দুজন নিহত হয়। এর মধ্যে গতকাল ভোরে দাগনভূঞায় অ্যাম্বুল্যান্স ও কাভার্ড ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত হয় সাগর (১৫) নামের এক কিশোর। সে অ্য্যম্বুল্যান্সের হেলপার ছিল।

এদিকে মুহুরীগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মাহবুব আলম জানান, গতকাল দুপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের খাইয়ারা এলাকায় ট্রাকচাপায় এক পথচারী নিহত হয়েছে।

পঞ্চগড় : বোদা উপজেলার বাইপাস এলাকায় বিআরটিসির বাসের ধাক্কায় আবু সাঈদ (২৮) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। তিনি কাজী ফার্মস ফিড মিলের কর্মকর্তা ছিলেন। গতকাল বোদা বাইপাসের সামনে পঞ্চগড়-ঢাকা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

রায়পুরা : নরসিংদীর রায়পুরায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে যাত্রীবাহী একটি বাস খাদে পড়ে গেলে প্রায় ৪০ জন আহত হয়। এদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা