kalerkantho

বুধবার । ২২ মে ২০১৯। ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৬ রমজান ১৪৪০

তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত থাকছে না পরীক্ষা

কমিটি চূড়ান্ত করবে বিকল্প মূল্যায়ন পদ্ধতি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা না রাখা এবং বিকল্প মূল্যায়ন পদ্ধতি নিয়ে সভা করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। সেখানে বিকল্প মূল্যায়ন পদ্ধতি চূড়ান্ত করতে ১০ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটির প্রধান করা হয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) জি এম হাসিবুল আলমকে। কমিটিকে অংশীজনদের সঙ্গে আলোচনা করে আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। 

সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত গতকাল বুধবারের সভায় বিকল্প মূল্যায়ন পদ্ধতির ওপর করা ধারণাপত্র পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে উপস্থাপন করে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি)। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন—প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমির (নেপ) মহাপরিচালক, এনসিটিবির সদস্য (প্রাথমিক) প্রমুখ।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন বলেন, ‘কমিটি মাঠপর্যায়ের অংশীজনদের সঙ্গে বসবে। এ ছাড়া যাদের প্রয়োজন মনে করবে তাদের মতামতও নেবে। এরপর একটা বিকল্প মূল্যায়ন পদ্ধতি চূড়ান্ত করে মন্ত্রণালয়ে জমা দেবে। সেই মূল্যায়ন পদ্ধতি নিয়ে আমরা শিক্ষাবিদদের সঙ্গে বসব। এরপর তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা তুলে দেওয়ার ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’ সভা সূত্রে জানা যায়, শিক্ষার্থীদের শোনা, বলা, পড়া ও লেখা এই চারটি বিষয়ের ওপর মূল্যায়ন করে পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করার ব্যাপারে সভার সবাই একমত হন। এ ছাড়া শিক্ষকরা যাতে বিকল্প মূল্যায়নে সাবলীল হয় সে ব্যাপারেও আলোচনা হয়। তবে একজন শিক্ষার্থী প্রকৃতপক্ষে শিখেই যেন ওপরের ক্লাসে ওঠে, তা নিশ্চিত করার ব্যবস্থাও রাখতে হবে বলে জানান অনেকে। আর কোনো মূল্যায়নেই শিক্ষার্থীদের কোনো নম্বর দেওয়া হবে না বলে সবাই মত দেন।

সভায় উপস্থিত থাকা এনসিটিবির চেয়ারম্যান অধ্যাপক নারায়ণ চন্দ্র সাহা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পরীক্ষার বদলে বিকল্প মূল্যায়ন পদ্ধতি নিয়ে আমরা একটা ফ্রেমওয়ার্ক তৈরি করেছি। এই ফ্রেমওয়ার্কের ওপর ভিত্তি করে কমিটি কাজ করবে।’

মন্তব্য