kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৭ জুন ২০১৯। ১৩ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

আমলকীর পানিতেও বহু ফায়দা

১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আমলকীর পানিতেও বহু ফায়দা

আমলকীকে পুষ্টি উপাদানের আধার বলা যেতেই পারে। এই ফলে আছে অতি জরুরি খনিজ ও ভিটামিন। কয়েকটি রোগবালাই প্রতিরোধেও সক্ষম এটি। তবে তেতো ও টক হওয়ায় অনেকে এটি চিবিয়ে খেতে পারেন না। এ ক্ষেত্রে বিকল্প হিসেবে আমলকীর পানি খাওয়ার পরামর্শ দেন পুষ্টিবিদরা। এই পানির উপকারিতা নিয়েই আজকের টিপস—

১.  গবেষকদের মতে, আমলকীর রস বা রস মিশ্রিত পানি সাধারণ ঠাণ্ডা-সর্দি নিরাময়ে দারুণ কাজ করে।  মুখে আলসার হলেও এর জুড়ি নেই। প্রতিদিন সকালে অনেকেই মধু খান। এতে যে উপকার মেলে, মাত্র দুই চা চামচ আমলকীর রসে একই সুফল পাবেন।

২.  প্রতিদিন আমলা পানি খেলে দেহে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমে যায়। এর অ্যামাইনো এসিড ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট হৃদ্যন্ত্রের দেখভাল করতে থাকে।

৩.  ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণেও খুবই কাজের আমলার পানি। শ্বাসযন্ত্রের যত্ন নেয় এবং অ্যাজমার মতো রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে।

৪.  এ পানির মৃদু ক্ষারধর্মী আচরণ হজমপ্রক্রিয়াকে শক্তিশালী করে। গোটা দেহব্যবস্থাপনাকে পরিষ্কার করে।

৫.  যকৃতের কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য এবং এর বিষাক্ত উপাদান বের করে দিতে পারদর্শী এই ফল।

৬.  ভিটামিন ‘সি’র পাশাপাশি এতে আছে আয়রন, ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস। বেশি খেলেও কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই।

৭.  আমাদের চুলের গঠনের ৯৯ শতাংশই প্রোটিন। আমলকীর অ্যামাইনো এসিড ও প্রোটিন দ্রুত চুল বাড়ানোর জন্য কার্যকর। চুলের গোড়া শক্ত করে; ফলে চুল পড়া রোধ হয়।

৮.  মুখের ত্বকের অনাকাঙ্ক্ষিত দাগ দূর করে আমলকীর রস। তুলায় সামান্য রস নিয়ে দাগে মাখলেই উপকার মিলবে।

যেভাবে খাবেন

আমলার পানি সকালে খালিপেটে খাওয়া উচিত। এক গ্লাস পানিতে দুই চা চামচ মিশিয়ে নিন। খেতে খারাপ লাগলে তাতে অনায়াসে মেশাতে পারেন মধু কিংবা লেবুর রস।

ফুড অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা