kalerkantho

সোমবার। ২৭ মে ২০১৯। ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ২১ রমজান ১৪৪০

নয়াপল্টনে বিএনপি-পুলিশ সংঘর্ষ

৩ মামলায় গ্রেপ্তার ৭২, রিমান্ডে ৪৫

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



রাজধানীর নয়াপল্টনে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় দায়ের হওয়া তিন মামলায় গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ৭২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত দুই দিনে পল্টন থানায় দায়ের করা তিন মামলায় গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে বৃহস্পতিবার রিমান্ড পাওয়া ৩৮ জন ও গতকাল রিমান্ড পাওয়া সাতজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গোয়েন্দা দপ্তরে নেওয়া হয়েছে।

হামলা ও পুলিশের গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের পুত্রবধূ ও দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় চৌধুরীসহ সাতজনকে গতকাল পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদারের আদালত শুনানি শেষে এই আদেশ দেন। রিমান্ডের আদেশ পাওয়া অন্য ছয়জন হলেন ছাত্রদল কেন্দ্রীয় কমিটির সহসম্পাদক আরিফা সুলতানা রুমা, রাজধানীর খিলক্ষেত থানা বিএনপির সভাপতি ইউসুফ মৃধা, কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলার যুবদল নেতা আবুল হাশিম সবুজ, বরগুনার তালতলী উপজেলার বিএনপি নেতা আমির হোসেন এবং বিএনপির কর্মী মহসিন ও মামুনুর রশিদ খোকন।

পুলিশ ও আদালত সূত্র জানায়, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক কামরুল ইসলাম গতকাল দুপুরে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আসামিদের আদালতে হাজির করেন। শুনানি শেষে বিচারক পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এ সময় আসামিপক্ষের আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া ও নিপুণ রায়ের বাবা অ্যাডভোকট নিতাই রায় চৌধুরী আসামিদের রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন। শুনানির সময় আদালতে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ও উপস্থিত ছিলেন।

নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনের সড়কে বুধবার পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী ও পুলিশ সদস্য আহত হয়। এ সময় পুলিশের দুটি গাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসসহ এজাহারভুক্ত আসামি হন গয়েশ্বর রায়ের পুত্রবধূ নিপুণ রায়। বৃহস্পতিবার নয়াপল্টনে নাইটিঙ্গেল মোড় থেকে পল্টন থানার নাশকতা মামলায় গ্রেপ্তার হন নিপুণ রায় চৌধুরী। এ সময় বিএনপির আরেক নেত্রী কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীনকে আটক করা হলেও পরে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়। রিমান্ডের আদেশ পাওয়া অন্যদের কোথা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে পুলিশ তা নিশ্চিত করেনি।

মামলার তদারক কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (পূর্ব) খন্দকার নুরন্নবী বলেন, পল্টন থানায় দায়ের করা তিন মামলায় পুলিশ এখন পর্যন্ত মোট ৭২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। এর আগে গ্রেপ্তার হয়েছিল ৬৫ জন। এর মধ্যে বৃহস্পতিবার রাতে গ্রেপ্তার করা হয় নিপুণ চৌধুরীসহ সাতজনকে। বৃহস্পতিবার রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া ৩৮ ও আজ (গতকাল) রিমান্ড পাওয়া সাতজন মিলে মোট ৪৫ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গোয়েন্দা দপ্তরে আনা হয়েছে। 

অন্য এক প্রশ্নের জবাবে তদন্তসংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা বলেন, অগ্নিসংযোগকারী ও হেলমেটধারীদের গতকাল পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা যায়নি। তবে শিগগিরই তাদেরকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে।

বুধবারের সংঘর্ষের ঘটনায় পল্টন থানায় পুলিশের দায়ের করা নাশকতার তিন মামলায় আসামির সংখ্যা ৪৮৮ জন। আসামির তালিকায় রয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যাত্রাবাড়ী বিএনপির সভাপতি নবী উল্লাহ নবী, ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) আকতারুজ্জামান এবং চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কফিল উদ্দিন, বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রশিদ হাবিব, মিডিয়া উইং সামসুদ্দিন দিদার, দপ্তর সম্পাদক বেলাল আহমেদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট নিপুণ রায়, যুবদলের সভাপতি রফিকুল ইসলাম মজনু, ছাত্রদল ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি জহির উদ্দিন তুহিন, কেন্দ্রীয় সহসাধারণ সম্পাদক আরিফা সুলতানা রুমা প্রমুখ।

মন্তব্য