kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

‘গায়েবি’ মামলা

প্রধানমন্ত্রীকে দ্বিতীয় তালিকা দিল বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দল ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের নামে দায়ের হওয়া ‘গায়েবি’ মামলার দ্বিতীয় তালিকা দিয়েছে বিএনপি। এই তালিকায় এক হাজার দুটি মামলার উল্লেখ রয়েছে। এসব মামলায় আসামি ৩৬ হাজার নেতাকর্মী। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত তালিকাটি গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে জমা দিয়েছেন দলের সহদপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু।

প্রধানমন্ত্রীর পত্র গ্রহণ শাখায় মামলার নথিসহ তালিকাটি গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা রুহুল আমীন। বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং কর্মকর্তা শামসুদ্দিন দিদার ও মামলার তথ্য সংগ্রহকারী সালাহ উদ্দিন খান তাঁর সঙ্গে ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সচিব আব্দুল হামিদের কাছে এর আগে ৭ নভেম্বর আংশিক নামের তালিকা জমা দেয় বিএনপি। তাইফুল ইসলাম টিপু কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘জমা দেওয়া তালিকায় এক হাজার দুটি মামলার উল্লেখ রয়েছে। এসব মামলায় এরই মধ্যে গ্রেপ্তার রয়েছে ১২ শতাধিক নেতাকর্মী। এর আগে ৭ নভেম্বর আমরা এক হাজার ৪৬টি মামলার তালিকা জমা দিয়েছি। সেখানে গ্রেপ্তার হওয়া পাঁচ হাজার ২৭৪ জন কর্মীর নাম ছিল। ওই সব মামলায় নাম উল্লেখ করা আসামির সংখ্যা ৯৬ হাজার ৭০০ জন। উভয় তালিকায় দুই হাজার ৪৮টি মামলায় নাম উল্লেখ করা আসামির সংখ্যা মোট এক লাখ ৪২ হাজার ৭০০ জন। এ ছাড়া উভয় তালিকায় অজ্ঞাতপরিচয় আসামি আরো তিন লাখ ৭০ হাজার।’

মির্জা ফখরুল স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘শুভেচ্ছা নেবেন। গত কয়েক বছর ধরে বিএনপির জাতীয় নেতারাসহ দেশব্যাপী জেলা, মহানগর, উপজেলা, থানা, এমনকি ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধেও ধারাবাহিকভাবে হাজার হাজার মিথ্যা, উদ্ভট, গায়েবি ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা দায়ের করা হচ্ছে, যা (৬ নভেম্বর মঙ্গলবার পর্যন্ত) অব্যাহত আছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ১ সেপ্টেম্বর থেকে দেশব্যাপী ব্যাপক হারে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও গায়েবি মামলা দিয়ে গ্রেপ্তারের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠাচ্ছে এবং রিমান্ডে নিয়ে অকথ্য নির্যাতন করছে। এ ধরনের ন্যক্কারজনক ও অমানবিক ঘটনা নিঃসন্দেহে গভীর উদ্বেগজনক। ন্যূনতম কোনো সত্যতা কিংবা প্রমাণ না থাকলেও নেতাকর্মীদের এ ধরনের বানোয়াট ও হাস্যকর মামলায় প্রতিনিয়ত জড়ানো হচ্ছে। আশ্চর্য হলেও সত্যি, বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের মৃত কিংবা দেশের বাইরে অবস্থানরত ব্যক্তিদেরও মিথ্যা মামলায় আসামি করা হয়েছে।’

চিঠিতে আরো বলা হয়েছে, ‘গত ১ নভেম্বর সংলাপে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে আলোচনার সময় প্রধানমন্ত্রী বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা গায়েবি মামলার তালিকা পাঠানোর জন্য বলেন। তারই আলোকে দেশব্যাপী বিএনপি এবং এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা উল্লেখপূর্বক আংশিক তালিকা গত ৭ নভেম্বর পাঠানো হয়। কিন্তু এখন পর্যন্ত ওই তালিকার অভিযুক্তদের মামলা প্রত্যাহার ও তাদের অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে কি না তা আমাদের জানা নেই। আবারও দ্বিতীয় তালিকা প্রেরণ করা হলো। মিথ্যা মামলায় নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার ও হয়রানি বন্ধ করে এসব মামলা প্রত্যাহার করার জন্য অনুরোধ জানানো হলো। পরবর্তী সময়ে এসংক্রান্ত আরো তালিকা পাঠানো হবে।’

মন্তব্য