kalerkantho

বুধবার । ২২ মে ২০১৯। ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৬ রমজান ১৪৪০

মজুরিভিত্তিক বাস চলাচল

মানেননি লোকাল বাসের মালিকরা

‘সিটিং’ ৫ কম্পানির সদস্য পদ বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চুক্তির বদলে দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে বাস চালানোর সিদ্ধান্ত পুরোপুরি কার্যকর হয়নি প্রথম দিন। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকায় নগর পরিবহনের বড় অংশ বিশেষ করে লোকাল বাসগুলো আগের মতো চুক্তিতেই চলাচল করেছে। অথচ নগরীর সব বাস চুক্তির বদলে দৈনিক মজুরিতে চালানোর ঘোষণা দিয়েছিল ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি।

এ প্রসঙ্গে পরিবহন শ্রমিকরা জানান, সিটিং বাস মজুরিতেই চলেছে।

জানা গেছে, ঢাকা সড়ক পরিবহন সমিতির অধীন ১৩০টি বাস কম্পানির সবই সিটিং। এসবের মধ্যে পাঁচটি কম্পানি সমিতির সিদ্ধান্ত মানেনি। এ কারণে এসব বাস কম্পানির সদস্য পদ গতকাল বাতিল করা হয়েছে। এগুলো হলো—আজমেরী পরিবহন, সুপ্রভাত পরিবহন, স্কাই লাইন পরিবহন, ডিএমকে পরিবহন ও গাবতলী-সদরঘাট (৭ নম্বর রোড) পরিবহন। এসব কম্পানির সদস্য পদ বাতিল করেছে সমিতি। এসব কম্পানির ৭০০ বাস ও মিনিবাস চলাচল করে ঢাকায়।

গত বুধবার ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি সংবাদ সম্মেলন করে ঘোষণা করেছিল, চুক্তির বদলে পরিবহন শ্রমিকদের নির্ধারিত মজুরি দিয়ে বাস চালানো হবে।

ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্ল্যা কালের কণ্ঠকে বলেন, কোনো গাড়ি চুক্তিভিত্তিক না চললে দুর্ঘটনা কমবে।

গত রাতে ফার্মগেট, মিরপুরসহ বিভিন্ন বাস স্টপেজে চালকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, লোকাল বাসে চালকরা আগের মতোই মালিককে নির্ধারিত টাকা দিয়ে বাস ভাড়া নিয়েছেন। মোহাম্মদপুর-আজিমপুর রুটের বাসচালক নজির হোসেন বলেন, ‘মালিককে আগের মতোই আজ রাতে চার হাজার ৩০০ টাকা দিতে হবে।’

গত ২৯ জুলাই বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার পর ছাত্রবিক্ষোভে নগর পরিবহনে নৈরাজ্যের বিষয়টি সামনে আসে। সড়কে শৃঙ্খলা আনতে মালিক সমিতি মজুরির ভিত্তিতে বাস চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়।

মন্তব্য