kalerkantho

মঙ্গলবার। ১৮ জুন ২০১৯। ৪ আষাঢ় ১৪২৬। ১৪ শাওয়াল ১৪৪০

সুন্দর আবাসন নিশ্চিত করতে চায় সংসদ কমিটি

নতুন এমপিদের জন্য ফ্ল্যাট ছাড়ার তাগিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



একাদশ সংসদে যাঁরা নির্বাচিত হবেন সেই নতুন সংসদ সদস্যদের (এমপি) জন্য সুন্দর আবাসন নিশ্চিত করতে চায় জাতীয় সংসদের আবাসনের দায়িত্বে থাকা ‘সংসদ কমিটি’। এ জন্য চলতি সংসদের যেসব সদস্য সংসদ ন্যাম ফ্ল্যাটে (সদস্য ভবনে) থাকেন না তাঁদের ফ্ল্যাট ছেড়ে দেওয়ার তাগিদ দেওয়া হয়েছে। ফ্ল্যাটগুলো খালি হলে সংস্কার করে নতুন এমপিদের থাকার ব্যবস্থা করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি ও প্রধান হুইপ আ স ম ফিরোজ। বৈঠকে কমিটির সদস্য মো. তাজুল ইসলাম চৌধুরী, নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটন, মোছা. মাহাবুব আরা বেগম গিনি, পঞ্চানন বিশ্বাস, তালুকদার মো. ইউনুস ও নাজমুল হক প্রধান এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি আ স ম ফিরোজ বলেন, এই সংসদের মেয়াদ আর বেশিদিন নেই। পরে যাঁরা নির্বাচিত হবেন, তাঁরা যাতে সুন্দরভাবে থাকতে পারেন সে জন্য যেসব এমপি ফ্ল্যাটে থাকেন না, তাঁদের ফ্ল্যাট ছেড়ে দিতে বলা হয়েছে; যাতে ফ্ল্যাটগুলোর সংস্কারকাজ এগিয়ে রাখা যায়। এ ধরনের ৩০ থেকে ৪০ জন সংসদ সদস্য রয়েছেন বলে তিনি জানান।

উল্লেখ্য, এমপিদের বসবাসের জন্য রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউ ও নাখালপাড়ায় ১০টি ভবনে ২৯২টি ফ্ল্যাট বরাদ্দ দিয়েছে সংসদ সচিবালয়। সংসদ কমিটির প্রাথমিক তালিকায় ৯১টি ফ্ল্যাটে সংসদ সদস্যদের অবস্থান না করার বিষয়টি উঠে আসে; যেখানে তাঁদের কাজের লোক, ব্যক্তিগত সহকারী ও ড্রাইভার বাস করতেন। পরবর্তী সময়ে যাচাই-বাছাই করে ৩০ জনের মতো এমপিকে ফ্ল্যাট বরাদ্দ বাতিলের নোটিশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এক অনুষ্ঠানে তাঁদের বরাদ্দ বাতিলের তাগাদা দেন। কিন্তু এখনো অনেকেই নিজ ফ্ল্যাট একইভাবে ব্যবহার করছেন।

তিন পয়েন্টে সার্বক্ষণিক পুলিশ : সংসদ ভবন এলাকায় প্রবেশের তিনটি পয়েন্টে সার্বক্ষণিক ট্রাফিক পুলিশ রাখার জন্য সুপারিশ করেছে সংসদ কমিটি। কমিটির বৈঠকে আলোচনা শেষে আসাদ গেট, মানিক মিয়া এভিনিউ ও মনিপুরিপাড়া গেটসংলগ্ন প্রধান সড়কে ট্রাফিক পুলিশ রাখার জন্য বলা হয়। একই সঙ্গে সংসদ সদস্য ও আগত অতিথিদের সংসদে যাতায়াতের সুবিধার্থে চন্দ্রিমা উদ্যান ও বিজয় সরণি এলাকার গেট খোলা রাখার জন্য সার্জেন্ট অ্যাট আর্মসকে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

এ ব্যাপারে কমিটির সভাপতি আ স ম ফিরোজ বলেন, আসাদ গেট, মানিক মিয়া এভিনিউ ও মনিপুরিপাড়া—এই তিনটি পয়েন্ট থেকে সংসদে ঢুকতে যাওয়া গাড়িগুলো যাতে রাস্তার ওপর দাঁড়িয়ে না থাকে সে জন্য সার্বক্ষণিক ট্রাফিক পুলিশ নিয়োজিত রাখতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া সংসদ সদস্যদের কাছে আসা অতিথিদের সঠিকভাবে তল্লাশি করে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে কি না তা তদারকির সুপারিশ করা হয়েছে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা