kalerkantho

শনিবার । ২৫ মে ২০১৯। ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৯ রমজান ১৪৪০

ভারতের সঙ্গে সংলাপ কাল

সাজাপ্রাপ্ত নিরীহ দুই বাংলাদেশিকে ফেরত চাইবে ঢাকা

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১৮ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের প্রথম কনস্যুলার সংলাপ আগামীকাল রবিবার ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশে অবস্থানরত ভারতীয়দের এবং ভারতে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের সুরক্ষা ও কল্যাণ নিশ্চিত করার দ্বিপক্ষীয় ফোরাম হিসেবে উভয় দেশ উচ্চপর্যায়ে নিয়মিত সংলাপ অনুষ্ঠানের উদ্যোগ নিয়েছে।

জানা গেছে, প্রথম সংলাপে ভারতে সাজাপ্রাপ্ত দুজন নিরীহ বাংলাদেশিকে ফেরত আনার বিষয়টি বাংলাদেশ গুরুত্ব দিয়ে তুলে ধরবে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (দ্বিপক্ষীয় ও কনস্যুলার) কামরুল আহসান বাংলাদেশের পক্ষে এবং ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (কনস্যুলার, ভিসা ও পাসপোর্ট) ডি এম মুলায় তাঁর দেশের পক্ষে সংলাপে নেতৃত্ব দেবেন।

সংশ্লিষ্টরা বলেছেন, বাংলাদেশ ও ভারতের নাগরিকদের কনস্যুলারবিষয়ক সেবা বিশেষ করে মানবপাচারের শিকার হওয়া এবং কারাগারে থাকা ব্যক্তিদের ফিরিয়ে আনা ও আইনি সেবার মতো বিষয় সংলাপে প্রাধান্য পাবে। ভারতে বাংলাদেশের পাঁচটি মিশন থেকেই সংলাপের প্রস্তুতি-সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। ভারতের কারাগারে বন্দি বাংলাদেশির সংখ্যা কয়েক হাজার হতে পারে। অন্যদিকে বাংলাদেশের কারাগারগুলোতেও প্রায় দুই শ ভারতীয় বন্দি রয়েছে।

জানা গেছে, আসামসহ বিভিন্ন রাজ্যে ‘অবৈধ বাংলাদেশি’ ইস্যুটিও তুলতে পারে ভারত। তবে বাংলাদেশ বিশেষ গুরুত্ব দেবে ভারতে সাজা হওয়া বাদল ফরাজি ও আলমগীর নামের দুই বাংলাদেশির ব্যাপারে। কয়েক বছর আগে তাঁরা অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করেন। এরপর আলাদা দুটি মামলায় তাঁরা ফেঁসে যান। আদালত ইতিমধ্যে আলমগীরের মৃত্যুদণ্ড ও বাদল ফরাজির যাবজ্জীবন সাজা দিয়েছেন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ওই দুই বাংলাদেশির বিশেষ করে আলমগীরের ব্যাপারে তাঁরা নিশ্চিত যে তিনি দোষী নন। কারণ যে খুনের ঘটনায় তাঁকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে সেই খুনের সময় তিনি বাংলাদেশে ছিলেন। আদালতে সাজা পাওয়া ওই ব্যক্তিদের নিরপরাধ প্রমাণে ভারত কিভাবে সহযোগিতা করতে পারে সে বিষয়ে আলোচনা হবে।

জানা গেছে, ভারতের কারাগারে বন্দি বাংলাদেশের কয়েকজন দাগি আসামিকে ফিরিয়ে আনার বিষয়েও সংলাপে আলোচনা হবে। সাজ্জাদ, সুব্রত বাইন ও শাহাদাত নামের তিন সন্ত্রাসী বর্তমানে ভারতের কারাগারে আছে। প্রত্যাবাসন চুক্তির আওতায় তাঁদের ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য