kalerkantho

শনিবার । ২৫ মে ২০১৯। ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৯ রমজান ১৪৪০

মাত্র ১৫০০ টাকা ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট ভাড়া

বিমান বাংলাদেশের ছাড়

আসিফ সিদ্দিকী, চট্টগ্রাম   

১৮ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট রুটে মাত্র দেড় হাজার টাকায় (রিটার্ন টিকিটসহ হলে তিন হাজার) ভ্রমণের বিশেষ অফার দিয়েছে বাংলাদেশ বিমান। সুযোগটি থাকবে আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এতে যাত্রীরা উপকৃত হলেও বেসরকারি তিনটি বিমান সংস্থা প্রতিযোগিতা বৃদ্ধির আশঙ্কা করছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বিলাসবহুল বাস ভাড়াই এক হাজার ৩০০ টাকা।

চট্টগ্রাম-ঢাকা রুটে বিমান সংস্থাগুলোর নিয়মিত ভাড়া ছিল তিন হাজার টাকা। এক মাস আগে বাংলাদেশ বিমান ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে ভাড়া কমিয়ে দুই হাজার ৩০০ টাকা করে। সব বিমান পরিবহনের মধ্যে এ ভাড়া ছিল সর্বনিম্ন। এর আগে ভাড়া কমিয়ে বেসরকারি বিমান সংস্থা নভোএয়ার দুই হাজার ৫০০ টাকা এবং রিজেন্ট এয়ারওয়েজ দুই হাজার ৭০০ টাকা করে। অবশ্য ইউএস-বাংলার ভাড়া এখনো তিন হাজার টাকা রয়ে গেছে।

বাংলাদেশ বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পর্যটন মৌসুমে আকাশপথে ভ্রমণ আরো সাশ্রয়ী ও অধিকতর স্বাচ্ছন্দ্যময় করে তুলতে এই সুযোগ দেওয়া হয়েছে।’

বিমান তাদের ফেসবুক পেজে এ খবরটি দিয়ে বলেছে, জাতীয় পতাকাবাহী সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস পর্যটন মৌসুমে আকাশপথে ভ্রমণকে আরো সাশ্রয়ী এবং অধিকতর স্বাচ্ছন্দ্যময় করে তুলতে এই ছাড় দিয়েছে। সুপরিসর বোয়িং-৭৭৭ এবং বোয়িং-৭৩৭ উড়োজাহাজে এ ভ্রমণ করা যাবে।  বিমানের সব সেলস সেন্টার, ট্রাভেল এজেন্ট থেকে নগদ, ক্রেডিট কার্ড, বিকাশ ও রকেট এবং বিমানের ওয়েবসাইট থেকে ক্রেডিট কার্ড ও রকেটের মাধ্যমে টিকিট কেনা যাবে।

ভাড়া কমানোর কারণে বেসরকারি বিমান সংস্থাগুলো প্রতিযোগিতায় পড়বে কি না জানতে চাইলে রিজেন্ট এয়ারওয়েজের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা আনিসুল আলম চৌধুরী তুহিন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বাংলাদেশ বিমান চাইলে ১৫০ টাকায়ও ভাড়া নির্ধারণ করতে পারে। কারণ তাদের মাস শেষে লাভ-লোকসান হিসাব কষতে হয় না, ব্যাংক ঋণও নেই। বছর শেষে সরকার ভর্তুকি দিয়ে দেয়।’

মন্তব্য