kalerkantho

মঙ্গলবার। ১৮ জুন ২০১৯। ৪ আষাঢ় ১৪২৬। ১৪ শাওয়াল ১৪৪০

মুক্তিযোদ্ধার তালিকা

নাম অন্তর্ভুক্তিতে মেননসহ দেড় শ জনের আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন মুক্তিযুদ্ধকালীন শিবপুর বাহিনীর ১৫০ জনের নাম মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় অন্তর্ভুক্তির জন্য আধাসরকারি পত্র (ডিও লেটার) দিয়েছেন। এই তালিকায় তাঁর নিজের নাম ছাড়াও স্ত্রী লুত্ফুন্নেসা খান, ওয়ার্কার্স পার্টির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমানে সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য হায়দার আকবর খান রনো ও তাঁর ছোট ভাই হায়দার আনোয়ার জুনোর নাম রয়েছে।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্যাডে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীর মাধ্যমে এ চিঠি প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, “১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় আমাদের দলসহ কতিপয় বামপন্থী দল ‘জাতীয় মুক্তিযুদ্ধ সমন্বয় কমিটি’ গঠন করে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করি। মওলানা ভাসানীকে প্রধান করে তাঁর অবর্তমানে এই কমিটি গঠন করা হয়। আমরা প্রবাসী সরকারের সাথে সহযোগিতা ও মুক্তিযুদ্ধের বিভিন্ন সেক্টরে সরাসরি অংশগ্রহণের পাশাপাশি দেশের অভ্যন্তরেও ঘাঁটি স্থাপন করার নীতি গ্রহণ করি। মুক্তিযুদ্ধকালীন বর্তমান নরসিংদী জেলার শিবপুরে আমরা প্রধান কেন্দ্রস্থল করে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ঘাঁটি স্থাপন করি। আমাদের মুক্তিযোদ্ধারা বীরত্বের সঙ্গে যুদ্ধ করে শিবপুর অঞ্চলকে যুদ্ধের ৯ মাসে পুরোপুরি মুক্ত রাখে এবং বিভিন্ন অঞ্চলে মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে একযোগে যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে।”

চিঠিতে আরো জানানো হয়, ‘ইতিমধ্যে ন্যাপ-কমিউনিস্ট পার্টি-ছাত্র ইউনিয়নের গেরিলা দলকে মুক্তিযোদ্ধার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করতে হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছেন এবং তারা তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হবে বলে আশা করি। আমরাও একইভাবে আমাদেরসহ শিবপুরের যাঁরা বাদ পড়েছেন তাঁদের তালিকাভুক্ত করার দাবি রাখি।’

চিঠিতে বলা হয়, ‘সম্প্র্রতি মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা চূড়ান্ত করা হচ্ছে। এই সময়ে ওই তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্ত না হলে ওই সম্মান থেকে আমরা বাদ পড়ে যাব।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা