kalerkantho

শনিবার । ২৫ মে ২০১৯। ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৯ রমজান ১৪৪০

সংস্কৃতি

শেষ হলো সেলিম উৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ আগস্ট, ২০১৫ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শেষ হলো সেলিম উৎসব

শিল্পকলা একাডেমিতে সেলিম আল দীন নাট্যোৎসবের শেষ দিনে অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদারকে উত্তরীয় পরানোর পর ক্রেস্ট তুলে দেন অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। ছবি : কালের কণ্ঠ

নাটক মঞ্চায়ন, সেমিনার ও পদক প্রদানের মধ্য দিয়ে শেষ হলো চার দিনব্যাপী সেলিম আল দীন নাট্য উৎসব। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে এ আয়োজনের সমাপ্তি টানা হয়। এদিন মীর মকসুদ উস সালেহীন-বজলুল করিম পদক ২০১৪, ফওজিয়া ইয়াসমিন শিবলী পদক ২০১৪ ও সেলিম আল দীন পদক ২০১৫ প্রদান করা হয়।

এবারের মীর মকসুদ উস সালেহীন-বজলুল করিম পদকে ভূষিত হন ফেরদৌসী মজুমদার, ফওজিয়া ইয়াসমিন শিবলী পদক পান চট্টগ্রামের শিল্পী শায়লা শারমিন স্বাতী এবং সেলিম আল দীন পদক পান কলকাতার অধ্যাপক অরুণ সেন। পদকপ্রাপ্তদের উত্তরীয় পরিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি ক্রেস্ট ও নগদ অর্থ প্রদান করা হয়। উৎসবের সমাপনী আয়োজনে অতিথি ছিলেন ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। আরো ছিলেন সেলিম আল দীনের স্ত্রী মেহেরুন্নেসা ও নাসির উদ্দীন ইউসুফ।

অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, 'যাঁদের নামে এই পদক দেওয়া হচ্ছে তাঁদের মতো নাট্যজন আমরা আর পাচ্ছি না। এর কারণ আমরা বিকৃতির ভেতর দিয়ে যাচ্ছি। পুঁজিবাদী ব্যবস্থা চরম সংকটে পৌঁছে দিয়েছে আমাদের। পুঁজিবাদ শিল্পকলার নিকৃষ্টতম শত্রু।'

পদকপ্রাপ্তির অনুভূতি জানিয়ে অরুণ সেন বলেন, 'পশ্চিমবঙ্গেও সেলিম আল দীনের গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে। বেড়েছে তাঁকে পাঠ, আলোচনা ও সমালোচনা। শুধু নাট্যরচনাই নয়, তাঁর অভিপ্রায় ব্যাপক। সেটা নাটকের সীমানা ছাড়িয়ে শিল্প-সাহিত্যের অন্যান্য শাখায়ও বিস্তৃত।

শেষ পর্বে একই মিলনায়তনে মঞ্চস্থ হয় সেলিম আল দীন রচিত ও ঢাকা থিয়েটার প্রযোজিত নাটক 'নিমজ্জন'।

এর আগে বিকেলে শিল্পকলা একাডেমির সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত স্মারক বক্তৃতা 'দ্বৈতাদ্বৈতবাদী শিল্পতত্ত্ব ও শিল্প সৃজনবিষয়ক অপরাপর মতবাদ' নিয়ে আলোচনা করেন অধ্যাপক আবদুস সেলিম। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন নাট্যজন আতাউর রহমান, রামেন্দু মজুমদার প্রমুখ।

ফোকলোর সেমিনার আজ শুরু

বাংলা একাডেমির ফোকলোর, জাদুঘর ও মহাফেজখানা বিভাগের উদ্যোগে এবং বগুড়া সরকারি আযিযুল হক কলেজের সহযোগিতায় আজ শনিবার থেকে বগুড়ায় শুরু হচ্ছে দুই দিনের ফোকলোর সেমিনার। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেবেন আযিযুল হক কলেজের সহযোগী অধ্যাপক ড. বেলাল হোসেন। ধারণাপত্র উপস্থাপন করবেন বাংলা একাডেমির ফোকলোর, জাদুঘর ও মহাফেজখানা বিভাগের পরিচালক শাহিদা খাতুন। প্রধান অতিথি থাকবেন কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক সামস-উল আলম। তিনটি পৃথক অধিবেশনে 'উত্তরবঙ্গের সমাজ ও সংস্কৃতিতে মাদারপীরের প্রভাব', 'মাদারপালার পরিবেশনারীতির লোকশৈলী' ও 'মাদারপীরের গানের ঐতিহ্য ও মাদার বাঁশের জারি' শীর্ষক তিনটি প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন যথাক্রমে ড. বেলাল হোসেন, অধ্যাপক আল জাবির ও সাইদুর রহমান বয়াতী। আলোচনায় অংশ নেবেন বিশিষ্ট ফোকলোর গবেষকরা।

'আমার সোনার দেশ' প্রদর্শনী আজ

নদীমাতৃক ছয় ঋতুর দেশ, অপরূপ নিসর্গের লীলাভূমি আমাদের বাংলাদেশ। নদী-নালা, খাল-বিল, হাওর-বাঁওড়, পাহাড়-সমুদ্র অপরূপ রূপের খেলা বাংলার বৈশিষ্ট্য। চিত্রশিল্পী সোহাগ পারভেজ বাংলার প্রকৃতিকে নিখুঁতভাবে তুলে ধরেছেন তাঁর চিত্রপটে। টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়ার আনাচকানাচের অনেক জায়গায় ঘুরে বেড়িয়েছেন তিনি রং, তুলি আর ক্যানভাস নিয়ে। তাঁর তিন বছরের কাজ নিয়ে রাজধানীর গ্যালারি অ্যাথেনা আয়োজন করেছে 'আমার সোনার দেশ' শিরোনামের একক চিত্র প্রদর্শনী। এতে ৭১টি চিত্রকর্ম ঠাঁই পেয়েছে। আজ বিকেল ৫টায় শুরু হবে প্রদর্শনী। এতে সম্মানিত অতিথি থাকবেন শিল্পী সমরজিৎ রায় চৌধুরী, শিল্প সমালোচক রবিউল হুসাইন, শিল্পী ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব আফজাল হোসেন ও শিল্পরসিক মাঈনুল আবেদিন।

মন্তব্য