kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

চিকিৎসক এমপিদের মানববন্ধন

বোমা বন্ধ না হলে দগ্ধ রোগী নিয়ে খালেদাকে ঘেরাওয়ের ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৫ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আগামী সাত দিনের মধ্যে পেট্রলবোমা হামলা বন্ধ না হলে বোমায় দগ্ধ রোগী নিয়ে খালেদা জিয়াকে ঘেরাও করবেন চিকিৎসক সংসদ সদস্যরা। গতকাল সোমবার জাতীয় সংসদ ভবনের সামনে মানিক মিয়া এভিনিউতে মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে এই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

চলমান জ্বালাও-পোড়াও, নৈরাজ্য ও সহিংসতার প্রতিবাদে চিকিৎসক সংসদ সদস্যদের ডাকে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ডা. ইউনুস আলী সরকার। দুপুর ১২টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত চলা ওই কর্মসূচিতে একাত্মতা প্রকাশ করেন ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া। বক্তব্য দেন ডা. মোদাচ্ছের আলী, ডা. আ ফ ম রুহুল হক, অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, ডা. দীপু মনি, ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, সংসদ সদস্য ডা. রুস্তম আলী ফরাজী, ডা. আমান উল্লাহ, ডা. হাবিব-এ মিল্লাত, সাগুফতা ইয়াসমিন ও তারানা হালিম, ডা. প্রাণগোপাল দত্ত প্রমুখ।

ডা. মোদাচ্ছের আলী বলেন, পাকিস্তানের শেষ সময়ে দেশনেতা দাবিদার ইয়াহিয়া খান বলেছিলেন, 'আমার দেশ চাই, মাটি থাকলেই হবে। মানুষ বাঁচল কিনা তা দেখার প্রয়োজন নেই।' তাই তারা পোড়া মাটি নীতি অবলম্বন করে গণহত্যা চালিয়েছিল। আর এখন দেশনেত্রী খালেদা জিয়াও একই কাজ করছেন। পেট্রলবোমা দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করছেন। খালেদা জিয়াকে সন্ত্রাসী ও জঙ্গিদের নেত্রী আখ্যায়িত করে ডা. রুহুল হক বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশে জঙ্গিদের সঙ্গে নিয়ে রাজনীতি চলবে না। এটা বন্ধ করতে হবে। যারা এই অপচেষ্টা করছে জনগণ তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে। তাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

দেশব্যাপী সহিংসতার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে ডা. রুস্তম আলী ফরাজী বলেন, আন্দোলনের নামে মানুষ হত্যা, অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুরের ঘটনা সংবিধান সমর্থন করে না। সংবিধান ও গণতন্ত্রবিরোধী এই কার্যকলাপ বন্ধে কঠোর আইন করতে হবে। তিনি দেশের ১৫ কোটি মানুষকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

আগামী সাত দিনের মধ্যে নৈরাজ্যের পথ না ছাড়লে খালেদা জিয়াকে ঘেরাওয়ের ঘোষণা দিয়ে সমাবেশের সভাপতি ডা. ইউনুস আলী সরকার বলেন, চিকিৎসকরা শুধু সেবা দেবে না, প্রয়োজনে ধারাবাহিক আন্দোলন গড়ে তুলবে। গণ-আন্দোলনের মুখে খালেদা জিয়া পালিয়ে যাওয়ার পথ পাবেন না।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা