kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

বিলাসবহুল ক্রুজশিপে সাগরপথে কক্সবাজার-সেন্ট মার্টিন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ অক্টোবর, ২০২২ ২০:১৬ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বিলাসবহুল ক্রুজশিপে সাগরপথে কক্সবাজার-সেন্ট মার্টিন

ছবি- এমভি কর্ণফুলী এক্সপ্রেস।

পাহাড়-সমুদ্র বরাবরই কাছে টানে পর্যটকদের। সাগরের বিশালতা ও নির্মল প্রকৃতি সকলকে আপন করে নেয়। তাই বিশ্বের বৃহত্তম সমুদ্রসৈকত কক্সবাজারের গুরুত্ব ব্যাপক। বিলাসবহুল ক্রুজশিপে নদী-সাগরপথে সরাসরি কক্সবাজার-সেন্ট মার্টিন ভ্রমণের সুযোগ সেটিকে করতে পারে আরো আনন্দময়।

বিজ্ঞাপন

কর্ণফুলী শিপ বির্ল্ডাসের কক্সবাজার-সেন্ট মার্টিন ও চট্টগ্রাম-সেন্ট মার্টিন রুটে চালু হতে যাওয়া বিলাসবহুল ক্রুজশিপ করে দেবে সেই সুযোগ।

প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আগামী ৬ অক্টোবর থেকে কক্সবাজার-সেন্ট মার্টিনের মধ্যে সরাসরি যাতায়াত শুরু করবে এমভি ‘কর্ণফুলী এক্সপ্রেস’ এবং আগামী ৩ নভেম্বর চট্টগ্রাম-সেন্ট মার্টিনের মধ্যে চলাচল করবে বিলাসবহুল ক্রুজশিপ ‘এমভি বে ওয়ান’। এ ছাড়াও শীঘ্রই এই বহরে যুক্ত হবে ‘বারো আউলিয়া’ নামে নতুন আরেকটি ক্রুজশিপ।

এমভি কর্ণফুলী সকালে কক্সবাজার এয়ারপোর্ট সড়কের বিআইডাব্লিউটিএ ঘাট থেকে যাত্রা শুরু করে দুপুরে সেন্ট মার্টিন পৌঁছবে এবং একই দিন বিকেলে সেন্ট মার্টিন থেকে ফিরতি পথ ধরে রাতে কক্সবাজারে ফিরবে।

জানা যায়, ২০২০-এর জানুয়ারিতে যাত্রা শুরু হয় দেশের প্রথম ও একমাত্র এই নৌ রুট। এই ক্রুজলাইনের হাতেখড়ি মূলত কর্ণফুলী দিয়ে। ১৭টি ভিআইপি কেবিন ও তিন ক্যাটাগরির প্রায় ৬০০ আসন এবং আধুনিক বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা সংবলিত এই জাহাজ দৈর্ঘ্যে প্রায় ৫৫ মিটার এবং প্রস্ত ১১ মিটার।

তবে কক্সবাজার জেলা শহর থেকে ১২০ কিলোমিটার দূরত্বে রয়েছে প্রবাল দ্বীপ সেন্ট মার্টিন। পর্যটকদের কাছে কক্সবাজার ও সেন্ট মার্টিনের গুরুত্ব অপরিসীম। কক্সবাজার ট্যুরে প্রবালবেষ্টিত সেন্ট মার্টিন না গেলে ট্যুরটা যেন অধরাই রয়ে যায়। ফলে ভ্রমণ তালিকায় সাধারণত কক্সবাজার-সেন্ট মার্টিন/সেন্ট মার্টিন-কক্সবাজার থাকেই।

কক্সবাজার থেকে সেন্ট মার্টিন যাতায়াত করতে পর্যটকদের টেকনাফের ঘুরতি পথ ধরতে হতো। তবে ২০২০ পর্যটন মৌসুম থেকে বিলাসবহুল ক্রুজশিপ এমভি কর্ণফুলী এক্সপ্রেস সরাসরি কক্সবাজার-সেন্ট মার্টিন যাতায়াতের মধ্য দিয়ে এই জার্নিকে নীল সমুদ্রের নান্দনিক ভ্রমণে রূপ দিয়েছে। দুই বছর যাবৎ পর্যটকরা সরাসরি কক্সবাজার শহর থেকেই সেন্ট মার্টিন যাতায়াতের সুযোগ পাচ্ছেন।

শিপটি কক্সবাজার এয়ারপোর্ট সড়কের বিআইডাব্লিউটিএ ঘাট থেকে সকালে ছাড়ে এবং বিকেলে সেন্ট মার্টিন থেকে ফিরতি পথ ধরে। জাহাজের সম্মুখভাগে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কমন সিভিউ কেবিন-ক্রিসেন্ট টিমামের সোফায় বসে অথবা রুফটপে নদীতীরবর্তী অপূর্ব দৃশ্য ও সাগরের ঢেউয়ের ছন্দে, আড্ডায়-গল্পে জাহাজ কখন যে প্রবাল দ্বীপের নীল সাগরে পৌঁছে যায়, টেরও পাওয়া যায় না।

কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার এম এ রশিদ জানান, এমভি কর্ণফুলী এক্সপ্রেসকে নিজস্ব ডকইয়ার্ডে একটি অত্যাধুনিক বিলাসবহুল জাহাজ হিসেবে প্রস্তুত করা হয়েছে। ১৭টি ভিআইপি কেবিনসমৃদ্ধ এই জাহাজ ঘণ্টায় প্রায় ১২ নটিক্যাল মাইল গতিতে ছুটতে পারে।

তিনি আরো জানান, এই মৌসুমে এমভি বারো আউলিয়া নামক একই কম্পানির আরো একটি ক্রুজশিপ এই রুটে যুক্ত হতে যাচ্ছে। শুধু এই রুটেই নয়, চট্টগ্রাম ও সেন্ট মার্টিন রুটেও দিই বছর ধরে চলছে একই কম্পানির পাঁচতারা মানের সাত তলা আরেকটি বিলাসবহুল জাহাজ ‘এমভি বে ওয়ান’।  দেশের ইতিহাসে এটিও প্রথম ও একমাত্র ক্রুজশিপ।

সাগরবক্ষ থেকে প্রবাল দ্বীপকে দেখার জন্য তৈরি করা হয়েছে এমভি সেন্ট মার্টিন ক্রুজ নামক একটি বার্জ। বড় হলরুমসদৃশ এই বার্জে করে সেন্ট মার্টিন আইল্যান্ড, ছেড়া দ্বীপ ও ঘোড়া দ্বীপ এবং নয়নাভিরাম সূর্যাস্ত দেখানোর ব্যবস্থা রয়েছে।  

জাহাজটিতে রাউন্ড ট্রিপে সর্বনিম্ন ভাড়া ৩২০০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ২৮ হাজার টাকা। শ্রেণিভেদে রয়েছে ভাড়ার ভিন্নতা। নৌযানটিতে তিন ক্যাটাগরির প্রায় ৬০০ আসন রয়েছে। তন্মধ্যে আছে সিভিউ এসি সোফা সিটিং-ক্রিসেন্ট টিমাম, ভিআইপি ও ভিভিআইপি কেবিন, সাইট ভিউ এসি কেবিন, রুফটপ, কনফারেন্স রুম, ডাইনিং স্পেস, প্রশস্ত ব্যালকনিসহ আধুনিক বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা।

বিভিন্ন শ্রেণির মানুষের কথা বিবেচনা করে এ শিপে ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। ল্যাভেন্ডার ও মেরিগোল্ড নামক ইকোনমি চেয়ার সিট-(রাউন্ড ট্রিপ) ৩২০০ টাকা, ওয়ান ওয়ে ১৭০০ টাকা। গ্ল্যাডিয়াক ওপেন ডেক ও লিলাক লাউঞ্জ নামক বিজনেস ক্লাস (রাউন্ড ট্রিপ) ৪০০০ টাকা, ওয়ান ওয়ে ২১০০ টাকা।   ক্রিসেন্ট টিমাম (রাউন্ড ট্রিপ) ৪৫০০ টাকা, ওয়ান ওয়ে ২৩০০ টাকা।

এ ছাড়া সিঙ্গেল কেবিন (রাউন্ড ট্রিপ) ৭৫০০ টাকা, ওয়ান ওয়ে‌ ৪০০০ টাকা। টুইন কেবিন (রাউন্ড ট্রিপ) ১২০০০ টাকা, ওয়ান ওয়ে ৬৫০০ টাকা,  ভিআইপি (রাউন্ড ট্রিপ) ২০,০০০ টাকা,  ওয়ান ওয়ে ১১৫০০ টাকা, ভিভিআইপি (রাউন্ড ট্রিপ) ২৮০০০ টাকা, ওয়ান ওয়ে ১৫০০০ টাকা।

এ সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানা যাবে ০৯৬১০৮৪৯৯৭০, ০১৮৭০৭৩২৫৯৮ নম্বরে।



সাতদিনের সেরা