kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

র‌্যাব মহাপরিচালকের বিদায়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১ অক্টোবর, ২০২২ ০২:১৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



র‌্যাব মহাপরিচালকের বিদায়

পুলিশের এলিট ফোর্স র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) ৮ম মহাপরিচালক (ডিজি) হিসেবে ২ বছরেরও বেশি সময় দায়িত্ব পালন শেষে বিদায় নিলেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে র‌্যাব সদর দপ্তর থেকে বিদায় নেন তিনি। এ সময় র‌্যাব সদর দপ্তরের পক্ষ থেকে তাকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়।

গত ২২ সেপ্টেম্বর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা এক প্রজ্ঞাপনে তাকে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) হিসেবে মনোনীত করা হয়।

বিজ্ঞাপন

এর পরিপ্রেক্ষিতে তিনি র‌্যাব ডিজির দায়িত্বভার শেষ করলেন। পুলিশের সর্বোচ্চ পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত এ কর্মকর্তা গতকাল শুক্রবার পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন।

চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন র‌্যাবে যোগদানের পর থেকেই বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ ত্বরান্বিত করেছিলেন। তিনি ফোর্স ব্যারাক, ফোর্স মেস, হাসপাতাল, ডেন্টাল ইউনিট, জিমনেশিয়াম, অতিথিশালাসহ অসংখ্য উন্নয়ন কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন করেন। এছাড়া র‌্যাবের বিভিন্ন ব্যাটালিয়ন ও কোম্পানি পর্যায়ে নতুন নতুন স্থাপনা নির্মাণ কার্যক্রমও সফলভাবে সম্পন্ন করেন। সর্বোপরী তিনি দীর্ঘ দুই বছর পাঁচ মাসের অধিক সময় অত্যন্ত সফলতার সঙ্গে র্যাব ডিজির হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

২০২০ সালের ১৫ এপ্রিল করোনা মহামারির মধ্যে চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন র‌্যাব ডিজির দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। এ সময় তার দক্ষ নেতৃত্ব ও দিক নির্দেশনার ফলে র‌্যাব অন্যান্য সফলতা অর্জন করেছে। পাশাপাশি অপরাধ দূরীকরণে বিভিন্ন সৃষ্টিশীল ও গঠনমূলক পদক্ষেপের কারণে এ বাহিনী দেশের সব মানুষের কাছে ভূয়সী প্রশংসাও পেয়েছে।

অপরাধ দমনের পাশাপাশি বিভিন্ন মানবিক কার্যক্রমের মাধ্যমে তিনি র‌্যাবকে দেশব্যাপী প্রশংসার উঁচু স্থানে নিয়ে গেছেন। তিনি জঙ্গিদের আত্মসমর্পণের মাধ্যমে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে উদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন, যা ছিল একটি যুগান্তকারী ও সময়োপযোগী পদক্ষেপ।

এছাড়া কিশোর অপরাধের বিরুদ্ধে নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে কিশোর অপরাধকে সামাজিকভাবে প্রতিরোধ করেছিলেন। আভিযানিক কার্যক্রমের গতিশীলতা বাড়ানোর পাশাপাশি প্রযুক্তিগত আধুনিকায়নের লক্ষ্যে তিনি র‌্যাবকে বিভিন্ন উন্নত প্রযুক্তি সংযোজনেও ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।   



সাতদিনের সেরা