kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০২২ । ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

দেশ যে এগিয়ে যাচ্ছে তা জনগণকে জানাতে হবে : তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১৬:০১ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দেশ যে এগিয়ে যাচ্ছে তা জনগণকে জানাতে হবে : তথ্যমন্ত্রী

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সরকারের ভুল ও সমস্যার পাশাপাশি দেশ এগিয়ে যাচ্ছে সেটিও জনগণকে জানাতে হবে গণমাধ্যকেই। মানুষকে আশাবাদী রাখতে হবে। জাতি হতাশ হলে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে সামনে এগিয়ে যেতে পারবে না। গণমাধ্যমে সঠিকভাবে তথ্য পরিবেশিত না হলে মানুষ বিভ্রান্ত হয়।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবে জহুর হোসেন চৌধুরী হলে দৈনিক নতুন আশা পত্রিকার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

দৈনিক নতুন আশা পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ও প্রকাশক রুওশন আরা মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের বিশেষ বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ড. এনামুর রহমান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য বেনজির আহমেদ, সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক, সংসদ সদস্য গাজী মোহাম্মদ শাহনওয়াজ, সংসদ সদস্য আহসান আদেলুর রহমান, সংসদ সদস্য বেগম অপরাজিতা হক, সংসদ সদস্য বেগম পারভীন হক সিকদার প্রমুখ।

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, গণমাধ্যম রাজনীতি করে না। আমরা অনেক সময় দেখি গণমাধ্যম ছোট বিষয়কে বড় করে দেখায়, কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় দেখানো হয় না। দেখা যায়, সরকারের অর্জন তৃতীয় পাতায় স্থান পায় আর ভুল প্রথম পাতায়। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, সেটিও জনগণকে জানাতে হবে গণমাধ্যকেই। মানুষকে আশাবাদী রাখতে হবে। জাতি হতাশ হলে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে সামনে এগিয়ে যেতে পারবে না। গণমাধ্যমে সঠিকভাবে তথ্য পরিবেশিত না হলে মানুষ বিভ্রান্ত হয়।

তিনি এ সময় উল্লেখ করেন, প্রাইভেট টেলিভিশনের যাত্রা শুরু হয়েছে ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনার প্রথম শাসনামলে। বর্তমানে ৩৬টি, অনুমতি দেওয়া হয়েছে ৪৮টি টেলিভিশনের।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি বহুমাত্রিক গণতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থার ভিত প্রতিষ্ঠায় গণমাধ্যমের ভূমিকা রয়েছে। গণমাধ্যম সমাজের দর্পণ হিসেবে কাজ করে আবার মানুষের মধ্যে মিশ্রিত বিষয়েরও সৃষ্টি করে। সঠিকভাবে সংবাদ পরিবেশন না হলে মানুষ বিভ্রান্ত হয়। তাই গণমাধ্যমের বিকাশে যা কিছু করা দরকার, সরকার সেটি করছে। সাংবাদিকদের জন্য সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করা হয়েছে। যেখান থেকে সাংবাদিকদের সহযোগিতা করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে অসচ্ছল সাংবাদিকদের সন্তানদের শিক্ষার জন্য সহায়তা করার ব্যবস্থা করেছি। করোনাকালে উপমহাদেশের কোথাও সাংবাদিকদের মৃত্যু ছাড়া সহায়তা করা হয়নি। আমরা আমাদের সাংবাদিকদের সহায়তা করেছি, যা এখনো চলমান।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, জনগণের অগ্রগতি, রাষ্ট্রের অগ্রগতি যেন গণমাধ্যমে উঠে আসে। নতুন আশা পত্রিকায় যেন এসব উঠে আসে। করোনা মোকাবেলায় বাংলাদেশ সারা পৃথিবীতে পঞ্চম, দক্ষিণ এশিয়ায় প্রথম। রপ্তানির জন্য সরকার আজ প্রণোদনা দিচ্ছে।



সাতদিনের সেরা