kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০২২ । ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

স্বৈরাচারমুক্ত করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় ঝুঁকি নিতে হবে : ড. কামাল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১৯:০৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্বৈরাচারমুক্ত করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় ঝুঁকি নিতে হবে : ড. কামাল

'যুগে যুগে সাংবাদিকরা সত্য প্রতিষ্ঠায় বিভিন্ন ঝুঁকি নিয়েছেন। আতাউস সামাদের মতো আজও সাংবাদিকরা ঝুঁকি নিচ্ছেন। দেশের বর্তমান অবস্থায় স্বৈরাচারমুক্ত করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় ঝুঁকি নিতে হবে। '

বরেণ্য সাংবাদিক আতাউস সামাদের ১০ম মৃত্যুবার্ষিকীর স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন গণফোরামের একাংশের সভাপতি ড. কামাল হোসেন।

বিজ্ঞাপন

আজ সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া মিলনায়তনে আতাউস সামাদ স্মৃতি পরিষদ আয়োজিত ওই স্মরণসভায় তিনি এ কথা বলেন।

ড. কামাল বলেন, জনগণকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে। যারা নিজের অধিকার সম্পর্কে সচেতন থাকবে, আন্দোলন সংগ্রামের জন্য তাদের প্রস্তুত থাকতে হবে। কোনো সময় আমরা দেখিনি ঝুঁকি নেওয়া ছাড়া গণতন্ত্রকে রক্ষা করা গেছে।

তিনি বলেন, ঝুঁকি নেওয়ার বিষয়টি জনগণকে স্মরণ করিয়ে দিতে হবে। এবং তারা যেন মনে না করে আমরা কিছু না করেও ঐক্য ও নিজেদের অধিকার ধরে রাখতে পারব। যারা স্বৈরাচার এবং যা ইচ্ছে তা করতে চায় তাদের তা করতে দেব না আমরা।

ড. কামাল বলেন, মানিক মিয়া ও আতাউস সামাদদের পথ ধরে রেখেছে বলে সাংবাদিকরা এখনো উজ্জীবিত। আমরা সারাজীবন দেখেছি তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে লিখেছেন। সেই ঐতিহ্য বাঁচিয়ে রাখতে হবে নৈতিকতা দেখিয়ে। জনগণকে সচেতন রাখতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে আজকের পত্রিকার সম্পাদক গোলাম রহমান বলেন, রাজনীতি থেকে শুরু করে বিভিন্ন বিষয়ে সম্পৃক্ত থেকে যেভাবে আতাউস সামাদ সংবাদ সংগ্রহ করতেন তা থেকে সাংবাদিকদের অনেক কিছু শেখার আছে।

প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক সোহরাব হাসান বলেন, দল-মতের ঊর্ধ্বে সাংবাদিকতা করতেন আতাউস সামাদ। এ রকম বস্তুনিষ্ঠ, সত্যনিষ্ঠ সাংবাদিক বিরল। সবাইকে তিনি আপন করে নিতেন।

স্মরণসভায় অন্যদের মধ্যে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কাদের চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলামও বক্তব্য দেন। সাংবাদিকরা যাতে সত্য থেকে সরে না আসেন সে আহ্বান জানান বক্তারা। সাংবাদিকদের অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা ও সরেজমিন সাংবাদিকতায় ফিরে এলেই তার প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হবে বলেও তারা উল্লেখ করেন।



সাতদিনের সেরা