kalerkantho

বুধবার । ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৩ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

মিয়ানমার

রাখাইনের নিয়ন্ত্রণ: তীব্র লড়াই দুই পক্ষের মধ্যে

কূটনৈতিক প্রতিবেদক    

২০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০৮:০৮ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



রাখাইনের নিয়ন্ত্রণ: তীব্র লড়াই দুই পক্ষের মধ্যে

একদিকে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী। অন্যদিকে বিদ্রোহী গোষ্ঠী ইউনাইটেড লীগ অব আরাকানের (ইউএলএ) সামরিক শাখা আরাকান আর্মি। সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠায় তীব্র লড়াই চলছে ওই দুই পক্ষের মধ্যে। বেশ কয়েক দফায় মর্টারের গোলা সীমানা পেরিয়ে বাংলাদেশে এসে পড়েছে।

বিজ্ঞাপন

হতাহতের ঘটনাও ঘটেছে।

আরাকান আর্মি রাখাইনে তাদের নিয়ন্ত্রিত এলাকায় সংবাদ সম্মেলন করে বলেছে, ওই হামলার দায় মিয়ানমার বাহিনীর। আর মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ এ জন্য আরাকান আর্মিকে দায়ী করেছে।

মিয়ানমার থেকে পাওয়া খবরে জানা গেছে, আরাকান আর্মি মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর হামলা এবং বাংলাদেশে বেসামরিক জনগণ হতাহত ঘটনার নিন্দা জানিয়েছে। একই সঙ্গে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে ভূমিকা রাখতে বাংলাদেশসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ভূমিকা প্রত্যাশা করছে তারা।

সীমান্তে সামরিক উপস্থিতি জোরদার

মিয়ানমার থেকে বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া খবরে জানা গেছে, মিয়ানমারের সামরিক কাউন্সিল দেশের সীমান্ত এলাকাগুলোতে সামরিক উপস্থিতি জোরদার করছে। সীমান্ত এলাকায় বসবাসকারী বেসামরিক এলাকায় সামরিক জেট এয়ারক্রাফট থেকে গোলাবর্ষণ করা হচ্ছে। প্রতিদিনই প্রাণহানি ঘটছে।

গত শুক্রবার বান্দরবানের ঘুমধুম সীমান্তে মিয়ানমার থেকে আসা গোলা বিস্ফোরিত হয়ে একজন নিহত হয়েছে। রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে সক্রিয় গোষ্ঠী আরাকান আর্মি গত শনিবার সংবাদ সম্মেলন করে বলেছে, এ ধরনের মৃত্যুর খবর শোনা কষ্টকর। দুই বছর ধরে মিয়ানমারের সামরিক কর্তৃপক্ষ রাখাইন-বাংলাদেশ সীমান্ত অঞ্চলে গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘন করে চলেছে। আর এর দোষ চাপাচ্ছে আরাকান আর্মির ওপর। আরাকান আর্মি রাখাইনে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে ভূমিকা রাখার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এ জন্য তারা বাংলাদেশ ও জাতিসংঘের আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি প্রত্যাশা করেছে।

রাখাইনে সহিংসতা ৪৭৬% বেড়েছে

বিশ্বব্যাপী সংঘাত ও সংকট বিশ্লেষণকারী প্রতিষ্ঠান আর্মড কনফ্লিক্ট লোকেশন অ্যান্ড ইভেন্ট ডাটা প্রজেক্ট (এসিএলইডি) এক প্রতিবেদনে বলেছে, মিয়ানমারের রাখাইন ও চিন রাজ্যে গত মাসজুড়ে সামরিক বাহিনী ও আরাকান আর্মির সঙ্গে লড়াই হয়েছে। বিশেষ করে ২০ আগস্ট থেকে রাখাইনে পালেতওয়া টাউনশিপে সামরিক বাহিনী তীব্র লড়াই শুরু করে। উভয় পক্ষ ওই এলাকার নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টা চালিয়েছে। রাখাইন রাজ্য ও চিন রাজ্যের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ সংযোগ সড়কের একটি সামরিক ও পুলিশ ঘাঁটিতে রসদ নেওয়ার পথ আরাকান আর্মি বন্ধ করে দেয়। এরপর ২৬ আগস্ট মিয়ানমারে সামরিক ও পুলিশ সদস্যরা ওই ঘাঁটি ছেড়ে যায়।

গত এক মাসে রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর ওপর চোরাগোপ্তা হামলা চালিয়েছে আরকান আর্মি। ওই গোষ্ঠী অনেক স্থানে সামরিক চৌকির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। এরপর সামরিক বাহিনী নিয়ন্ত্রণ পুনঃপ্রতিষ্ঠায় পাল্টা অভিযান চালিয়েছে। এসিএলইডির তথ্য অনুযায়ী, রাখাইনে গত মাসে সহিংসতা ৪৭৬ শতাংশ বেড়েছে।

আসিয়ানকে পরিস্থিতি জানাল ঢাকা

ঢাকায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গতকাল সোমবার আসিয়ান সদস্য রাষ্ট্রগুলোর রাষ্ট্রদূতদের কাছে সীমান্ত পরিস্থিতি তুলে ধরেছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলেছেন, জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ মঙ্গলবার নিউ ইয়র্কে পৌঁছবেন। সেখানে তিনি বিভিন্ন বৈঠকে ও বক্তব্যে রোহিঙ্গা সংকট এবং সীমান্ত পরিস্থিতির কথা বিশ্বের সামনে তুলে ধরবেন।

এর আগে গত রবিবার মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে চতুর্থবারের মতো তলব করে সীমান্তে গোলা নিক্ষেপের ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ। একই সঙ্গে সীমান্তে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় বিজিবি ও কোস্ট গার্ডকেও সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান গতকাল বলেছেন, আর কোনো রোহিঙ্গা বাংলাদেশে ঢুকতে দেওয়া হবে না।

স্বীকৃতি চায় এনইউজি

মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থী প্রবাসী সরকার ন্যাশনাল ইউনিট গভর্নমেন্ট (এনইউজি) তাদের মনোনীত রাষ্ট্রদূতকে স্বীকৃতি দিতে জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। কূটনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, এনইউজির সঙ্গে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের যোগাযোগ বেড়েছে। গত রাতে নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘে মালয়েশিয়ার স্থায়ী মিশনে মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন আব্দুল্লাহর সঙ্গে এনইউজির প্রতিনিধিদের বৈঠক নির্ধারিত ছিল। ওই বৈঠক শেষে ভোরে যৌথ সংবাদ সম্মেলন করারও কথা রয়েছে।



সাতদিনের সেরা