kalerkantho

রবিবার । ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১০ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২৮ সফর ১৪৪৪

বিএসএমএমইউয়ে

প্রথমবারের মতো অ্যাওরটিক ভালভ প্রতিস্থাপন, সুস্থ আছে রোগী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ আগস্ট, ২০২২ ২০:১৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রথমবারের মতো অ্যাওরটিক ভালভ প্রতিস্থাপন, সুস্থ আছে রোগী

প্রথমবারের মতো সফলভাবে অ্যাওরটিক ভালভ প্রতিস্থাপন, সুস্থ আছেন রোগী।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) বুক না কেটে, অজ্ঞান না করে প্রথমবারের মতো অ্যাওরটিক ভালভ সফলভাবে প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। একদিন পর্যবেক্ষণ শেষে রোগী সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

আজ বুধবার (১৭ আগস্ট) দুপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ রোগীকে দেখতে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) যান।

এ সময় উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ রোগীর সঙ্গে কথা বলেন এবং তার শারীরিক অবস্থার খোঁজ খবর নেন।

বিজ্ঞাপন

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে (১৬ আগস্ট) বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারভেনশনাল হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এস এম মোস্তফা জামানসহ চিকিৎসকদের একটি দল অ্যাওরটিক ভালভ (টিএভিআই) প্রতিস্থাপন করেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের হৃদরোগ বিভাগের ইন্টারভেনশনাল হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এস এম মোস্তফা জামানের নেতৃত্বে একদল চিকিৎসক ৮০ বছরের এক বৃদ্ধের বুক না কেটে, অজ্ঞান না করে সফলভাবে অ্যাওরটিক ভালভ (টিএভিআই) প্রতিস্থাপন সম্পন্ন করেন। তাকে করোনারি ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি রাখা হয়েছে। ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজির ধারাবাহিক সফলতায় এই চিকিৎসাকে নতুন এক মাইলফলক হিসেবে দেখছেন বিশেষজ্ঞরা।

আজ রোগীকে দেখতে গিয়ে অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ প্রথমবারের মতো অ্যাওরটিক ভালভ (টিএভিআই) সফলভাবে প্রতিস্থাপন করায় অধ্যাপক ডা. এস এম মোস্তফা জামানের টিমকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, 'বর্তমান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দায়িত্ব নেওয়ার পর বিশ্ববিদ্যালয়ে গবেষণা কার্যক্রম বৃদ্ধির পাশাপাশি চিকিৎসা সেবার মান বৃদ্ধি করতে কাজ করছে। তারই ধারাবাহিকতায় এই সফলতা এসেছে। বর্তমান প্রশাসন চিকিৎসা বিজ্ঞানের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বাস্থ্যশিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবা ও স্বাস্থ্য গবেষণায় যুক্ত করতে চেষ্টা করছে। অনেক ক্ষেত্রে আধুনিক প্রযুক্তির মেডিক্যাল ইকুইপমেন্ট আনা হয়েছে। '

এ সময় অ্যাওরটিক ভালভ প্রতিস্থাপন সম্পর্কে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এসএম মোস্তফা জামান বলেন, 'অপারেশন মানেই ছুরি-কাঁচি ব্যবহার। আর আমরা ছুরি-কাঁচি ছাড়া বা বুক না কেটে ৮০ বছরের এক বৃদ্ধের হার্টের অ্যাওরটিক ভালভে সফলভাবে ভালভ প্রতিস্থাপন করে রোগীর জীবন বাঁচাতে সক্ষম হয়েছি। আমাদের দেশে অনেকের এ চিকিৎসা নেওয়ার সক্ষমতা নেই। যারা ধনী ব্যক্তি, তাদের অনেকেই দেশের বাইরে গিয়ে এ চিকিৎসা নিয়ে আসেন। '

তিনি বলেন, 'আমাদের অসচ্ছল জনগণ এ চিকিৎসা পান না। আমি বিশ্বের অন্যতম আধুনিক এই চিকিৎসা পদ্ধতি দেশেই প্রতিষ্ঠা করতে চাই। দেশের অসচ্ছল মানুষেরা যেন এ সেবা নিতে পারেন সে ব্যবস্থা সরকার করে দিলে আমরা এ চিকিৎসা সেবাকে অনেক দূর নিয়ে যেতে পারব। '

জটিল এ পদ্ধতিতে ভালভ প্রতিস্থাপনে সফলতা, এর সমস্যা ও সম্ভাবনা এবং পাশাপাশি ব্যয়বহুল এ চিকিৎসা সাধারণ জনগণের জন্য সহজলভ্য করতে তিনি নতুনদের জন্য প্রশিক্ষণেরও ব্যবস্থা করবেন বলে জানিয়েছেন।



সাতদিনের সেরা