kalerkantho

শুক্রবার । ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১৫ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

কামরাঙ্গীরচরে রিকশা-ভ্যান-ইজিবাইক শ্রমিক ইউনিয়নের ধর্মঘট ও সমাবেশ

৩০ আগস্ট ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন ‘ঘেরাও কর্মসূচি’ ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ আগস্ট, ২০২২ ১৪:৪২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



৩০ আগস্ট ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন ‘ঘেরাও কর্মসূচি’ ঘোষণা

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক কামরাঙ্গীরচরে গ্যারেজের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার প্রতিবাদে পরিবহন ধর্মঘট পালন করেছে রিকশা-ভ্যান-ইজিবাইক শ্রমিক ইউনিয়ন। আজ মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) সকাল ৬টা হতে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ধর্মঘট পালিত হয়।  

পুলিশের ভয়ভীতি নির্যাতন ও বাধা উপেক্ষা করে ধর্মঘটের সমর্থনে হাজার হাজার শ্রমিক কুড়ার ঘাট হাসপাতাল শহীদ মিনার মাঠ থেকে মিছিল করে সেকশন বেড়ি বাধে এসে সমাবেশ করে। সমাবেশ থেকে ৩০ আগষ্ট ডিএনসিসি ঘেরাও কর্মসূচী ঘোষণা করা হয়।

বিজ্ঞাপন

বিক্ষোভ মিছিল শেষে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন শ্রমিক নেতা আব্দুল হাকিম মাইজভান্ডারি। সমাবেশে বক্তৃতা করেন রিকশা-ভ্যান-ইজিবাইক শ্রমিক ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা রাগিব আহসান মুন্না, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম নাদিম, সাংগঠনিক সম্পাদক লিটন নন্দী, হাজারীবাগ থানার সভাপতি সুমন মৃধা, ৫৫নং ওয়ার্ডের আহ্বায়ক আব্দুস সালাম মোল্লা, ৫৭ নং ওয়ার্ড সভাপতি আরিফুল ইসলাম, শ্রমিকনেতা জালাল সিকদার, মো. জুয়েল, দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা অভিযোগ করেন, দেশের জনগণের কথা বলার অধিকার কেড়ে নিয়ে দেশকে পুলিশি রাষ্ট্রে পরিণত করা হয়েছে। ধর্মঘট ও সমাবেশ বানচাল করার জন্য পুলিশ শ্রমিকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হয়রানি-গ্রেপ্তার ও ভয়ভীতি দেখায়। ধর্মঘট চলাকালে বিভিন্ন স্থানে বাধা দিয়েছে। অথচ পুলিশের দায়িত্ব জনগণের অধিকার রক্ষায় জনগণের সঙ্গে থাকা। কিন্তু সরকার পুলিশকে জনগণের কণ্ঠরোধে লাঠিয়ালে পরিণত করেছে।  

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ব্যাটারিচালিত যানবাহনের গ্যারেজে বৈধভাবে মিটার ব্যবহার করে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করা হয়। এসব বিদ্যুতের লাইন বিনা নোটিশে বিচ্ছিন্ন করা অবৈধ কাজ। অবিলম্বে বিচ্ছিন্নকৃত সব বৈধ সংযোগ পুনরায় চালু করতে হবে।

বক্তারা বলেন, দেশের বিদ্যুৎ সমস্যার অজুহাত দিয়ে গরিব মানুষের রুজির ওপর হামলা করা হচ্ছে। অথচ বড়লোকের এসির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার কোন অভিযান নিতে দেখা যায় না। সরকার গরিব মেরে বড়লোক তোষণের নীতিতে দেশ চালাচ্ছে। লাখো শহীদের জীবনের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশে এই নীতি চলবে না বলে হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন তারা।  

সমাবেশ থেকে ব্যাটারিচালিত যানবাহন আটক ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন অভিযান বন্ধ করে লাইসেন্স প্রদানের দাবিতে আগামী ৩০ মঙ্গলবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন ঘেরাও ও মেয়র বরাবর স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। ওই কর্মসূচী সফল করার জন্য সর্বস্তরের জনগণের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।



সাতদিনের সেরা