kalerkantho

শনিবার । ১ অক্টোবর ২০২২ । ১৬ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

স্বপ্নে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, গ্রেপ্তার চার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ আগস্ট, ২০২২ ২১:১৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



স্বপ্নে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, গ্রেপ্তার চার

গ্রেপ্তারকৃত চার প্রতারক।

রিটেইল চেইনশপ স্বপ্নতে বিভিন্ন পদে চাকরি দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারক চক্র অনেকদিন ধরেই টাকা আত্মসাৎ করে আসছিল। সম্প্রতি নজরদারির মাধ্যমে একটি প্রতারক চক্রের চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সমিশনাল ক্রাইম ইউনিটের (সিটিটিসি) সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিম।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন আরিফ মিয়া, হুমায়ুন কবির হিমু, ফাহিম ও বাপন সাহা। তাদের কাছ থেকে মোবাইল ফোন ও সংযুক্ত সিমসহ বেশ কিছু কাগজ জব্দ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

 

গত ২৩ জুন তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় একটি মামলার প্রেক্ষিতে গত ৬ থেকে ৮ আগস্ট পর্যন্ত ধারাবাহিক অভিযান চালিয়ে চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সিটিটিসির সাইবার ক্রাইম প্রতিরোধ টিমের সহকারী পুলিশ কমিশনার ধ্রুব জ্যের্তিময় গোপ বলেন, একটি মামলা হওয়ার পর আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত শুরু করি এবং তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় আসামিদের সনাক্তপূর্বক গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হই। চাকরি প্রত্যাশীদের কাছে আমাদের প্রত্যাশা, আপনারা জেনে, বুঝে, শুনে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করুন অন্যথায় যে কোনো সময় প্রতারনার শিকার হতে পারেন।

স্বপ্নের হেড অব এইচ.আর খুরশীদ ইমবিসাত চৌধুরী বলেন, স্বপ্ন তার মানবসম্পদ বিভাগের মাধ্যমে কর্মী নিয়োগ প্রদান করে থাকে। স্বপ্ন চাকরির জন্য আবেদনের কয়েকটি ধাপ অনুসরণ করে। তার মধ্যে রয়েছে : স্বপ্নের প্রতিটি আউটলেটে প্রদত্ত সিভি বক্সের মাধ্যমে, মানবসম্পদ বিভাগ কর্তৃক মনোনিত এলাকাভিত্তিক মানবসম্পদ প্রতিনিধির মাধ্যমে এবং স্বপ্নের নিয়োগ সংক্রান্ত অফিসিয়াল ইমেইল এড্রেসের মাধ্যমে। এর বাইরে অন্য কোনো প্রক্রিয়ায় জনবল নিয়োগ করা হয় না স্বপ্নে। প্রয়োজনে নিয়োগ সংক্রান্ত তথ্যের জন্য অফিসিয়াল লিংকডিন প্রোফাইল অথবা স্বপ্নের ফেসবুক পেইজ অনুসরণ করার কথাও বলেন তিনি।

তদন্তকারী সূত্র জানায়, গ্রেপ্তারকৃত আরিফ সুপারটেক ইঞ্জিনিয়ারিং আ্যান্ড ট্রেডিং সার্ভিসেস লিমিটেড নামে প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ কর্মকর্তা হিসেবে চাকরি করতেন। পরবর্তীতে চাকরি ছেড়ে দিয়ে বিভিন্ন অসাধু ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান এর যোগসাজসে স্বনামধন্য রিটেইল সুপার শপ স্বপ্নের নাম ও লোগো ব্যবহার করে লোক নিয়োগ করা হবে মর্মে অফলাইন ও অনলাইন তথা ফেসবুক পেজ ও গ্রুপে ভুয়া নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রচার করে।

হিমু 'সুপারটেক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড ট্রেডিং সার্ভিসেস লিমিটেড' নামের প্রতিষ্ঠানের মালিক। ফাহিম 'জনবল ট্রেনিং অ্যান্ড সার্ভিসেস লিমিটেড' নামের প্রতিষ্ঠানের মালিক এবং বাপন সাহা নিয়োগ কর্মকর্তা হিসেবে চাকরি করে। তারা পারস্পরিক যোগসাজসে স্বপ্নের নাম ও লোগো ব্যবহার করে প্রতারণা করেছে।



সাতদিনের সেরা