kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১১ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২৯ সফর ১৪৪৪

বিমানবন্দরের কর্মীদের ‘ভালো ব্যবহার’ শেখাতে প্রশিক্ষণ

* ডলার পাচারের চেষ্টা করলে ব্যবস্থা
* ফ্লাইটের তিন ঘণ্টা আগে বিমানবন্দরে প্রবেশের পরামর্শ
* বিমানবন্দরে এসির কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন
* যাত্রীকে চড় মারা কাস্টমস কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা
* প্রবাসীকর্মীদের জন্য শাটল বাসের ব্যবস্থা হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ আগস্ট, ২০২২ ০২:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিমানবন্দরের কর্মীদের ‘ভালো ব্যবহার’ শেখাতে প্রশিক্ষণ

ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কর্মীদের ‘ভালো ব্যবহার’ শেখানোর জন্য প্রশিক্ষণ কোর্স চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান। গতকাল বুধবার শাহজালালে অনুষ্ঠিত গণশুনানিতে তিনি এ কথা জানান।

বিমানবন্দরে সাধারণ যাত্রীদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার নিয়মিত ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে উল্লেখ করে বেবিচক চেয়ারম্যান বলেন, যাত্রীদের সঙ্গে যাতে বিমানবন্দর কর্মীরা ভালো ব্যবহার করেন, এ জন্য বিমানবন্দরে কর্মরত ইমিগ্রেশন, কাস্টমস, পুলিশের সবাই প্রশিক্ষণের আওতায় থাকবেন। যাত্রীদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে কেউ এখানে চাকরি করতে পারবেন না।

বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি বিমানবন্দরে এক কাস্টমস কর্মকর্তা এক যাত্রীকে চড় মারেন। এ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়। এ কথা উল্লেখ করে বেবিচক চেয়ারম্যান বলেন, ‘যাত্রীদের সম্মান অক্ষুণ্ন রাখতে আমরা বদ্ধ পরিকর। কাস্টমসের ঘটনায় আমরা অত্যন্ত ব্যথিত; যাত্রী ভুল করে থাকলেও তাঁর গায়ে আঘাত করার অধিকার নেই। যিনি এই ঘটনা ঘটিয়েছেন, তাঁর ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। শুধু তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত না, তাঁর ব্যাপারে তদন্ত চলছে। ’
তিনি বলেন, ‘প্রবাসী ভাইয়েরা পরিবহন খাতে অনেক প্রতারিত হন। আমরা তাঁদের জন্য প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় যানবাহনের ব্যবস্থা করতে যাচ্ছি। এটা প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। আমরা শাটল বাসের ব্যবস্থা করব। বিমানবন্দর থেকে যাত্রীদের নিয়ে এসব বাস চলবে উত্তরাসহ কয়েকটি গন্তব্যে। এতে যাত্রীরা আর জিম্মি হবেন না। ’

বিমানবন্দর থেকে ডলার পাচার হচ্ছে কি না, এমন এক প্রশ্নের জবাবে বেবিচক চেয়ারম্যান বলেন, ‘যাঁরাই ডলার পাচার করার চেষ্টা করবেন, তাঁদের সবার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’

শুনানিতে উঠে আসে বিমানবন্দর কর্মীদের অসদাচরণ, লাগেজ পেতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা, লাগেজ হারিয়ে যাওয়ার মতো অভিযোগ। শীতাতপ যন্ত্রের কার্যকারিতা নিয়ে জানান এয়ারলাইনসের প্রতিনিধিরা। বিমানবন্দরের নির্বাহী পরিচালক জানান, বিদ্যুত্ সাশ্রয়ে এয়ারকুলারের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে।

গণশুনানিতে এক যাত্রী অভিযোগ করেন, বিমান থেকে নেমে গন্তব্যে পৌঁছাতে ভোগান্তিতে পড়তে হয়। বিমানবন্দরে থাকা সিএনজিচালিত অটোরিকশা বা গাড়িগুলোর কাছে যাত্রীরা জিম্মি থাকেন। স্বাভাবিকের চেয়ে কয়েক গুণ বেশি ভাড়া দিয়ে বেশির ভাগ সময় গন্তব্যে পৌঁছাতে হয়।

আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের যাত্রীদের কমপক্ষে তিন ঘণ্টা আগে বিমানবন্দরে প্রবেশের আহ্বান জানান বেবিচক চেয়ারম্যান। সেবার মান উন্নয়নে অনলাইনভিত্তিক সেবার পরিধি বাড়ানোর কাজ চলছে বলেও জানান তিনি।   

গণশুনানিতে আরো ছিলেন বেবিচকের সদস্য (পরিচালনা ও পরিকল্পনা) এয়ার কমোডর সাদিকুর রহমান চৌধুরী, সদস্য (এটিএম) এয়ার কমোডর মো. রেয়াদাদ হোসেন, সদস্য (ফ্লাইট স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড রেগুলেশনস) এয়ার কমোডর শাহ কাওছার আহমদ চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী মো. আব্দুল মালেক, সদস্য (নিরাপত্তা) গ্রুপ ক্যাপ্টেন আবু সালেহ মাহমুদ মান্নাফী এবং হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নির্বাহী পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম।



সাতদিনের সেরা