kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১১ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২৯ সফর ১৪৪৪

গুলিস্তানে নকল ফোনের কারখানা মালিক গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ আগস্ট, ২০২২ ২৩:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গুলিস্তানে নকল ফোনের কারখানা মালিক গ্রেপ্তার

রাজধানীর গুলিস্তানে কারখানায় অভিযান চালিয়ে আইএমইআই পরিবর্তন করা বিপুল পরিমাণ নকল মোবাইল ফোন ও যন্ত্রপাতি উদ্ধার করেছে র‌্যাব-৩। এ সময় কারখানার মালিক ও মূল কারিগর মো. স্বপনকে (২৬) গ্রেপ্তার করা হয়। অভিযানে প্রায় এক হাজার ৫০০টি মোবাইল ফোন, তিন হাজার ৩৭০টি নকল ব্যাটারি, ১২০টি হেডফোন, চার্জার কেবল ৩৮৫টি, নকল চার্জার এক হাজার ১৫৫টি, সেলার মেশিন, হিট গান, মোবাইল ফোনের ডিসপ্লে ৪৩টি, ইলেকট্রিক সেন্সর ১০টি, আইএমইআই কাটার মেশিন ১৩টি ও বিপুল পরিমাণ ভুয়া আইএমইআই স্টিকার ও ভুয়া বারকোড জব্দ করা হয়।

গতকাল সোমবার বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে মিডিয়া সেন্টারে র‌্যাব-৩-এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আরিফ মহিউদ্দিন আহমেদ জানান, সংশ্লিষ্ট সরকারি সংস্থার কোনো ধরনের অনুমোদন না থাকলেও দিনে ৫০টি মোবাইল ফোন তৈরি হতো এ কারখানায়।

বিজ্ঞাপন

দিনে ২০০টিরও বেশি মোবাইল বিক্রি করতেন স্বপন। নকল আইএমআই দিয়ে মোবাইল ফোন তৈরি করা হতো, যা দেশের বিভিন্ন এলাকায় খুচরা বিক্রেতাদের মাধ্যমে সাধারণ গ্রাহক ও অপরাধীদের হাতে চলে যেত।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থার (বিটিআরসি) সহযোগিতায় র‌্যাব এ অভিযান চালায় জানিয়ে মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, একটি বেসরকারি অফিসে পিয়নের কাজ করা স্বপন একজনের মোবাইল ফোন মেরামতের সূত্রে গুলিস্তান এলাকার এক মেকানিকের সঙ্গে পরিচিত হন এবং বিনা বেতনে একটি সার্ভিসিং দোকানে কাজ শিখতে শুরু করেন। এর পাশাপাশি এ বিষয়ে জানার জন্য অনলাইনে বিভিন্ন ভিডিও দেখেন। এক পর্যায়ে স্বপন নিজেই ভিন্ন দেশ থেকে যন্ত্রাংশ এনে মোবাইল ফোন তৈরি ও আইএমআই নম্বর পরিবর্তনের কাজ শুরু করেন। তাঁর কারখানায় আরো কয়েজকজন সহযোগী ছিল। তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।   

তিনি আরো বলেন, এসব মোবাইল বিটিআরসির নিবন্ধিত না হওয়ায় বিক্রির কিছু দিন পরই সদস্যা হতো। তা নিয়ে গ্রাহকরা মেরামতের জন্য স্বপনের দোকানেই আসত। একসময় মোবাইল ফেরত নেওয়ার আশা ছেড়ে দিতেন গ্রাহকরা। ফলে ওই মোবাইল পুনরায় নতুন গ্রাহকের কাছে বিক্রি করতেন স্বপন।  



সাতদিনের সেরা