kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ছয় ট্রাস্টিকে দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ মে, ২০২২ ১৭:২৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ছয় ট্রাস্টিকে দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা

অর্থ আত্মসাতের অভিযোগের মামলায় নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ছয় ট্রাস্টিকে দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েসের আদালত এ আদেশ দেন। দুদকের কোর্ট পরিদর্শক আমিনুল ইসলাম বিষয়টি জানিয়েছেন।

আসামিরা হলেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান আজিম উদ্দিন আহমেদ, বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য এম এ কাশেম, বেনজীর আহমেদ, রেহানা রহমান, মোহাম্মদ শাহজাহান এবং আশালয় হাউজিং ও ডেভেলপারস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমিন মো. হিলালী।

বিজ্ঞাপন

 

এদিন দুদক এ মামলার ছয় আসামিকে দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তা মঞ্জুর করে ছয় আসামির বিরুদ্ধে দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। এর আগে গত রবিবার চার ট্রাস্টির আগাম জামিনের আবেদন সরাসরি খারিজ করে আদেশ দেন বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের বেঞ্চ। একই সঙ্গে তাদেরকে শাহবাগ থানার হেফাজতে দেওয়া হয়। পরদিন সোমবার তাদের আদালতে হাজির করে শাহবাগ থানার পুলিশ।  

এরপর দুদক তাদের জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আবেদন করে। অন্যদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা কারাগারে প্রথম শ্রেণির ডিভিশন চেয়ে আবেদন করেন। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে বিচারক তাদের সাত কার্যদিবসের মধ্যে এক দিন জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে কারাবিধি অনুযায়ী তাদের ডিভিশন দেওয়ার জন্য কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন।  

নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসের জমি কেনা বাবদ অতিরিক্ত ৩০৩ কোটি ৮২ লাখ টাকা ব্যয় দেখিয়ে তা আত্মসাতের অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়টির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে গত ৫ মে মামলা করেন দুদকের উপপরিচালক মো. ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী। মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪০৯/১০৯/৪২০/১৬১/১৬৫ক ধারা এবং ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারা এবং মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন-২০১২-এর ৪(২)(৩) ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির সিন্ডিকেট, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে পাশ কাটিয়ে ট্রাস্টি বোর্ডের কয়েকজন সদস্যের অনুমোদন/সম্মতির মাধ্যমে ক্যাম্পাস উন্নয়নের নামে ৯০৯৬ দশমিক ৮৮ ডেসিমেল জমির দাম ৩০৩ কোটি ৮২ লাখ ১৩ হাজার ৪৯৭ টাকা বেশি দেখিয়ে তা আত্মসাৎ করা হয়েছে।  

উল্লেখ্য, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০১০ অনুযায়ী নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি পরিচালনার সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষ বোর্ড অব ট্রাস্টিজ। বিশ্ববিদ্যালয়ের মেমোরেন্ডাম অব অ্যাসোসিয়েশন অ্যান্ড আর্টিক্যালস (রুলস অ্যান্ড রেগুলেশনস) অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় একটি দাতব্য, কল্যাণমুখী, অবাণিজ্যিক ও অলাভজনক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।



সাতদিনের সেরা