kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জুন ২০২২ । ১৪ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

'বেশির ভাগ উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ হচ্ছে মাস্টারপ্ল্যান ছাড়াই'

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২১ মে, ২০২২ ২০:০৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



'বেশির ভাগ উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ হচ্ছে মাস্টারপ্ল্যান ছাড়াই'

দেশের বেশির ভাগ উন্নয়ন প্রকল্প মাস্টারপ্ল্যানের আওতায় হচ্ছে না। তা ছাড়া উন্নয়ন প্রকল্প তদারকির জন্য বাস্তবায়ন মূল্যায়ন পরিবীক্ষণ বিভাগের পর্যাপ্ত দক্ষ জনবল নেই বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্স (বিআইপি)।

উন্নয়ন প্রকল্পগুলো তদারকির জন্য পরিকল্পনাবিদদের অন্তর্ভুক্ত করার পাশাপাশি দেশের পৌরসভাগুলোর দেখভালের দায়িত্ব জেলা প্রশাসকদের না দিয়ে সেগুলোর প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বাড়ানোর কথা বলছে তারা।

আজ শনিবার রাজধানীর বাংলামোটরে সংগঠনটির নিজস্ব কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেছেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মেহেদি হাসান।

বিজ্ঞাপন

লিখিত বক্তব্যে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মেহেদি হাসান বলেন, 'প্রধানমন্ত্রী জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় বারবার বলেছিলেন মাস্টারপ্ল্যানের কথা। নগর, শহর, এমনকি গ্রামেও তিনি অগ্রাধিকার দিয়েছিলেন মাস্টারপ্ল্যানের। তবে আমরা দেখতে পাচ্ছি সরকারের এই উন্নয়ন প্রকল্পগুলো হচ্ছে মাস্টারপ্ল্যান ছাড়াই। '

তিনি আরো বলেন, মাস্টারপ্ল্যানের আওতা ছাড়া উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। এতে দেশের উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ সঠিকভাবে হয় না বরং এতে উন্নয়নকাজ বাধাগ্রস্ত হয়।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) সক্ষমতা ও দক্ষতার অভাবের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, 'উন্নয়ন প্রকল্প মূল্যায়নে আমাদের দক্ষ জনবল ও সক্ষমতার অভাব রয়েছে। সরকারের লাখো কোটি টাকার প্রকল্প মূল্যায়ন করছেন আইএমইডির মাত্র ৮৭ জন কর্মকর্তা। '

তিনি উদাহরণ দিয়ে বলেন, স্বাস্থ্যসেবাসংক্রান্ত কোনো প্রকল্পের পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়নের জন্য আইএমইডির কোনো বিশেষজ্ঞ ডাক্তার নেই। এ সময় তিনি উন্নয়ন প্রকল্পে পরিকল্পনাবিদদের অন্তর্ভুক্ত করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, তদারকির অভাবে উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে দেরি হয়, সঠিক সময়ে সঠিকভাবে পরিকল্পনা ও তদারক করলে প্রকল্পের অগ্রগতি যেমন বাড়ে তেমনি সরকারের লক্ষ্যমাত্রাও পূরণ হয়।

পৌরসভার দেখভালের দায়িত্ব জেলা প্রশাসকের না দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে মেহেদি হাসান বলেন, 'জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে আমাদের স্থানীয় সরকারের যে সকল প্রতিষ্ঠান আছে সেগুলোর সক্ষমতা বাড়াতে হবে। পাশাপাশি পৌরসভাগুলোর ক্ষমতায়ন বাড়াতে হবে। এর সাথে জেলা পর্যায়ে উন্নয়নকাজ দেখভালের জন্য একটি কমিটি করে সেখানে পরিকল্পনাবিদদের অন্তর্ভুক্ত করা যেতে পারে। '

এ সময় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে সংগঠনের সভাপতি পরিকল্পনাবিদ ফজলে রেজা সুমন বলেন, জেলা পর্যায়ে জেলা প্রশাসকরা ইতিমধ্যে জেলা উন্নয়ন সমন্বয় দেখাশোনা করেন জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির মাসিক সভার মাধ্যমে। তবে তারা প্রকল্পগুলোর কাঠামো অনুযায়ী বাস্তবায়ন সংস্থার তথ্য কমিটির নিকট প্রদান করতেন না।

তিনি আরো বলেন, তদারকির জন্য জনগণের সম্পৃক্ততা এবং স্থানীয় সরকার ও জনপ্রতিনিধিদের আরো সমন্বয় করতে হবে। সেই লক্ষ্যে কমিটি গঠন করতে হবে এবং সেখানে প্রকল্পের ওপর ভিত্তি করে পেশাজীবীদের সমন্বয় করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বিআইপির সহসভাপতি পরিকল্পনাবিদ আরিফুল ইসলাম বলেন, 'সরকার এখন কিছু পদক্ষেপ নিচ্ছে কমিটি গঠনের মাধ্যমে প্রকল্প দেখভালের জন্য। এই পদক্ষেপগুলো তারা নিচ্ছে তার অন্যতম কারণ হচ্ছে তারা এই প্রকল্পগুলো থেকে আশানুরূপ ফল পাচ্ছে না। তাই আমি মনে করি সরকারের উচিত প্রকল্প পরিবীক্ষণের কারিগরি সক্ষমতা বাড়ানোর এবং আশানুরূপ ফলাফলের জন্য, তদারকির জন্য পরিকল্পনাবিদদের যুক্ত করার প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। '

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহসভাপতি পরিকল্পনাবিদ ড. মো. শফিক-উর রহমান, কোষাধ্যক্ষ ড. মু. মোসলেহ উদ্দীন হাসান প্রমুখ।



সাতদিনের সেরা